মানবিক ত্রাণ পাঠানোর নামে ভেনিজুয়েলার অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মার্কিন হস্তক্ষেপের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়া। রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, আমেরিকা ‘অত্যন্ত নির্লজ্জভাবে’ আন্তর্জাতিক আইন ও রীতিনীতি লঙ্ঘন করছে।

তিনি আমেরিকার বিরুদ্ধে মস্কোর এ প্রতিবাদ জানানোর জন্য শনিবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে টেলিফোন করেন। ফোনালাপে ল্যাভরভ বলেন, “ভেনিজুয়েলায় মানবিক ত্রাণ পাঠানোর ভণ্ডামির ছদ্মাবরণে মার্কিন সরকার যে উসকানি ও ধ্বংসাত্মক বহিঃপ্রভাব খাটানোর চেষ্টা করছে তা গণতান্ত্রিক রীতিনীতির সঙ্গে খাপ খায় না।”

ল্যাভরভ ও পম্পেও’র এই টেলিফোনালেপের খবর রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রকাশ করেছে। ভেনিজুয়েলার চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতার ব্যাপারে আমেরিকা ও রাশিয়া পরস্পরের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।  এই টেলিফোনালাপকে এ যাবতকালের মধ্যে ভেনিজুয়েলার ব্যাপারে আমেরিকার প্রতি রাশিয়ার সবচেয়ে কঠোর বার্তা বলে মনে করা হচ্ছে।

মার্কিন সরকার ভেনিজুয়েলার সরকার বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদোকে সেদেশের অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। অন্যদিকে রাশিয়া ভেনিজুয়েলার নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর প্রতি সমর্থন ঘোষণা করেছে।

এদিকে ভেনিজুয়েলার ওপর একের পর এক মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে দেশটির সাধারণ মানুষের যখন কষ্ট হচ্ছে তখন আমেরিকা দেশটিতে মানবিক ত্রাণ পাঠিয়েছে। কলম্বিয়া ও ব্রাজিল হয়ে এসব ত্রাণ ভেনিজুয়েলায় পাঠানোর চেষ্টা করা হলেও প্রেসিডেন্ট মাদুরো বলেছেন, আমেরিকার ত্রাণ তিনি গ্রহণ করবেন না। ভেনিজুয়েলার সীমান্তরক্ষী বাহিনী এখন পর্যন্ত দেশটিত মার্কিন ত্রাণ ঢুকতে দেয়নি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here