ইমরান তাহিরের ‍দুর্দান্ত বোলিংয়ের পর সেঞ্চুরি করলেন ফ্যাফ ডু প্লেসি। কুইন্টন ডি কক খেললেন অসাধারণ এক ইনিংস। তাতে ব্যাটে-বলে দারুণ নৈপুণ্যে শ্রীলঙ্কাকে সহজেই হারাল দক্ষিণ আফ্রিকা।

রোববার জোহানেসবার্গে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে সফরকারী শ্রীলঙ্কাকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে প্রোটিয়ারা।

টস জিতে শ্রীলঙ্কাকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। সফরকারী দল ৩ ওভার বাকি থাকতেই গুটিয়ে যায় ২৩১ রানে। ৫ উইকেটে ২১০ রান করে ফেলার পর আর ২১ রান যোগ করতেই বাকি ৫ উইকেট হারায় লঙ্কানরা। জবাবে ডু প্লেসির অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ১১.১ ওভার হাতে রেখেই জয় নিশ্চিত করে দক্ষিণ আফ্রিকা।

শুরুটা ভালো না হলেও শ্রীলঙ্কা এদিন লড়াকু সংগ্রহের পথেই এগোচ্ছিল। লুঙ্গি এনগিদির আঘাতে ২৩ রানেই ফিরে যান দুই ওপেনার নিরোশান ডিকভেলা ও উপুল থারাঙ্গা। সেখান থেকে কুশল পেরেরা ও ওসাদা ফার্নান্দোর ব্যাটে বিপর্যয় কাটিয়ে ওঠে লঙ্কানরা।

৩৩ রান করা পেরেরাকে ফিরিয়ে দুজনের ৭৬ রানের জুটি ভাঙেন ইমরান তাহির। দুই রানের ব্যবধানে ফার্নান্দো ৪৯ রান করে রানআউট হয়ে ফেরেন। ফলে ১০১ রানে ৪ উইকেট হারায় সফরকারী দল।

কুশল মেন্ডিস ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভার ব্যাটে ফের ঘুরে দাঁড়ায় দলটি। দুজন পঞ্চম উইকেটে যোগ করেন ৯৪ রান। ৬০ রান করা ধনঞ্জয়া ও ৩৯ রান করা ডি সিলভা দুজনকেই ফেরান তাহির।

২১০ রানে ষষ্ঠ উইকেট হারানোর পর গুটিয়ে যেতে সময় লাগেনি শ্রীলঙ্কার। ৪০তম ওভারে রাবাদা তুলে নেন দুই উইকেট। পরে এনগিদি পেয়েছেন আরো এক উইকেট। সর্বাধিক ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন তাহির ও এনগিদি। তবে এনগিদি ছিলেন খরুচে। ১০ ওভারে ৬০ রান খরচা করেছেন। তাহির ছিলেন বেশ কৃপণ। পুরো ১০ ওভার বল করে ব্যয় করেন মাত্র ২৬ রান।

জবাব দিতে নেমে দলীয় ১৪ রানে রিজা হেনড্রিক্স বিদায় নেন। তবে ফ্যাফ ডু প্লেসি ও কুইন্টন ডি কক দ্বিতীয় উইকেটে ১৩৬ রানের জুটিতে দলকে জয়ের দিকে নিয়ে যান। ডি কক ৭২ বলে ৮১ রান করে ফেরেন। তার ইনিংসে ছিল ১১টি চার।

তবে ডু প্লেসি তুলে নেন নিজের একাদশ ওয়ানডে সেঞ্চুরি। ফন ডার ডুসেনের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটের অবিচ্ছিন্ন ৮২ রানের জুটিতে মাঠ ছাড়েন জয় নিয়ে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here