মধ্যম পাল্লার পরমাণু অস্ত্র ধ্বংস সংক্রান্ত আইএনএফ চুক্তিতে রাশিয়ার অংশগ্রহণ স্থগিত করে একটি ডিক্রিতে সই করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ক্রেমলিন বলেছে, আমেরিকার পক্ষ থেকে এই চুক্তি লঙ্ঘনের কারণে প্রেসিডেন্ট পুতিন এ ব্যবস্থা নিয়েছেন।

সোমবার ক্রেমলিনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ওই ডিক্রির বিবরণ প্রকাশিত হয়। তাতে বলা হয়, যতদিন আমেরিকা এই দ্বিপক্ষীয় চুক্তি লঙ্ঘন করবে ততদিন এটির প্রতি রাশিয়া নিজের প্রতিশ্রুতি পালন স্থগিত রাখবে।

আমেরিকা দু’টি ক্ষেত্রে আইএনএফ চুক্তি লঙ্ঘন করেছে বলে অভিযোগ করেছে মস্কো। দেশটি বলেছে, প্রথমত, ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বংসী ব্যবস্থা তৈরি করার জন্য আমেরিকা মধ্যম-পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তি ব্যবহার করছে যা আইএনএফ চুক্তির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। দ্বিতীয়ত, মার্কিন সরকার এমন একটি আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নির্মাণ করেছে যা দিয়ে টমাহক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা সম্ভব। এটি করতে গিয়েও আইএনএফ লঙ্ঘন করেছে ওয়াশিংটন।

গত ২ ফেব্রুয়ারি আইএনএফ চুক্তি স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছিল রাশিয়া। ১ ফেব্রুয়ারি আমেরিকা এই চুক্তি মানবে না বলে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা দেয়ার পর রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ২ ফেব্রুয়ারি পাল্টা এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত গতকাল (৪ মার্চ) তিনি এ সংক্রান্ত ডিক্রিতে সই করলেন।

স্নায়ুযুদ্ধ চলার সময় ১৯৮৭ সালে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগ্যান ও রুশ নেতা মিখাইল গর্বাচেভের মধ্যে ইন্টারমিডিয়েট রেঞ্জ নিউক্লিয়ার ফোর্সেস ট্রিটি বা আইএনএফ চুক্তি সই হয়েছিল। চুক্তির আওতায় ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য ৫০০ হতে সাড়ে পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার পরমাণুবাহী ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি নিষিদ্ধ করা হয়। পরবর্তীতে দুই দেশ প্রায় ২,৭০০ মধ্যম পাল্লার পরমাণুবাহী ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here