হ্যামিল্টনে প্রথম টেস্টে মোস্তাফিজুর রহমানকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল। বিশাল হারের পর এই পেসার ফিরছেন ওয়েলিংটন টেস্টে। মোস্তাফিজ ফিরলে বাদ পড়বেন প্রথম টেস্টে খেলা তিন পেসারের কোনও একজন- বৃহস্পতিবার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ জানিয়েছেন তেমনটাই।

হ্যামিল্টনে নিউজিল্যান্ডের জয় আর বাংলাদেশের পরাজয়ের কারণ কি ছিল? ঝটপট ‍উত্তরে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বিষন্ন হয়ে বলেছিলেন,‘প্রথম ইনিংস।’

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশ যে কয়েকটি ম্যাচে হেরেছে তার অধিকাংশ প্রথম ইনিংস ব্যর্থতায়। নিউজিল্যান্ডে প্রথম টেস্টে একই বৃত্তে ঘুরপাক খেয়েছে বাংলাদেশ। তাসমান পাড়ের দেশে সাদা পোশাকে প্রথম টেস্ট খেলতে নেমে শুরুতেই ব্যাকফুটে বাংলাদেশ। তামিমের অসাধারণ ১২৬ রানের পরও বাংলাদেশের রান ২৩৪! ওই রানের জবাবে নিউজিল্যান্ড নিজেদের টেস্ট ইতিহাসের সর্বোচ্চ ৭১৫ রান করে। তামিমের এক সেঞ্চুরির জবাব কেন উইলিয়ামসন ডাবল, জিত রাভাল ও টম লাথাম সেঞ্চুরি দিয়ে দিয়েছেন।

ফিরতিতে বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংসে তামিমের হাফ সেঞ্চুরি ও সৌম্য এবং মাহমুদউল্লাহর সেঞ্চুরিতে লড়াই করলেও ২২ গজের মঞ্চে টিকে থাকতে পারেননি। প্রথম ইনিংসের ব্যর্থতায় ইনিংস হারের আরেকটি লজ্জা সঙ্গী করেছে বাংলাদেশকে। তাইতো দ্বিতীয় টেস্টে প্রথম ইনিংসের লড়াইকে বড় করে দেখছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক।

‘‘টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম ইনিংস সবসময়ই খুব গুরুত্বপূর্ণ। এটি আপনাকে একটি ভালো ভিত গড়ে দেবে। আপনি যদি ভালো ব্যাটিং কিংবা বোলিং করেন তাহলে সেটি আপনাকে একটি ভিত দেবে। আপনি ম্যাচের নিয়ন্ত্রকটি কতটুকু আপনার কাছে নিতে পারছেন সেটাই আসলে গুরুত্বপূর্ণ। সেদিক থেকে প্রথম ইনিংস অবশ্যই অনেক গুরুত্ববহ। আমি চাই যে প্রথম ইনিংসে যদি ব্যাটিং করি তাহলে ভালো একটি জুটি এবং ভালো একটি ইনিংস বিল্ড আপ করতে হবে ও ভালো একটি পুঁজি দাঁড়া করাতে পারি। আর বোলিং করলে যেন আমরা শুরুতে কিছু উইকেট নিতে পারি এবং তাদেরকে চাপে ফেলতে পারি। তাহলেই আমরা ভালো কিছু করতে পারবো।’’ – বলেছেন মাহমুদউল্লাহ।

সপ্তাহ ঘুরে বাংলাদেশ হ্যামিল্টন ছেড়ে ওয়েলিংটনে। এখানে বাতাসের বেশ তীব্রতা। নিউজিল্যান্ডের চার পেস আক্রমণের আগে কন্ডিশনের সঙ্গে যুদ্ধ করাই এখানে সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ। হ্যামিল্টনের মতো ওয়েলিংটনেও বাংলাদেশের জন্য অপেক্ষা করছে সবুজ গালিচা। বাংলাদেশ আজ ম্যাচ ভেন্যুতে অনুশীলন করেছে। অনুশীলন উইকেটের পাশের ম্যাচ উইকেট দেখে বোঝা গেছে, উইকেটে ঘাস আছে। ম্যাচের আগে আবার কাটা হবে। তবে ম্যাচের প্রথম দুইদিন পেসাররা ম্যাচে বড় ভূমিকা রাখবে। মাহমুদউল্লাহর কন্ঠেও একই সুর।

‘‘উইকেটটি যদি আমরা বিবেচনা করি তাহলে দেখবেন, গতবারও (প্রথম টেস্টে) কিন্তু শুরুর দিকে এমন সবুজ উইকেট ছিল। প্রথম দিন ব্যাটসম্যানদের জন্য কিছুটা সমস্যা হবে। অনেক কঠিন চ্যালেঞ্জ থাকবে, সিম থাকবে, স্পিন থাকবে। তবে আমার কাছে মনে হয় দিন যত গড়াবে এটি আরও ভালো উইকেট হবে এবং ব্যাটিং সয়াহক উইকেট হয়ে যাবে। সুতরাং প্রথম দিন এবং প্রথম সেশনটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ।– যোগ করেন মাহমুদউল্লাহ।

ব্যর্থতার বৃত্তে ঘুরপাক খাওয়া বাংলাদেশ তিনটি জায়গায় আত্মবিশ্বাসী থেকে ওয়েলিংটনে মাঠে নামতে পারে। প্রথমত, তামিমের দারুণ ফর্ম। দ্বিতীয়ত, সৌম্যর সেঞ্চুরি। তৃতীয়ত, মাহমুদউল্লাহর নায়কোচিত সেঞ্চুরি। তিনে মিলে হ্যালিম্টনে যেভাবে ব্যাটিং করেছে তা প্রশংসার দাবীতার। এবারও তাদের কাঁধে বড় দায়িত্ব। তারা হাসলে হাসবে বাংলাদেশ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here