পাকিস্তানভিত্তিক সন্ত্রাসী সংগঠন জৈশ-ই-মুহাম্মদের প্রধান মাসুদ আজহারকে ‘মাসুদ আজহারজি’ বলে উল্লেখ করাকে কেন্দ্র করে ভারতের প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেস ও শাসকদল বিজেপির মধ্যে পাল্টাপাল্টি বাকযুদ্ধ শুরু হয়েছে।

কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী গতকাল (সোমবার) দিল্লিতে কংগ্রেস কর্মীদের এক সভায় ভাষণ দেয়ার সময় বলেন, আজ যিনি জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল মাসুদ আজহারকে কান্দাহারে হস্তান্তর করে এসেছিলেন। অজিত দোভাল ‘মাসুদ আজহারজি’কে কান্দাহারে ছেড়ে এসেছিলেন।

এভাবে মাসুদ আজহারকে ‘মাসুদ আজহারজি’ বলে উল্লেখ করায় বিজেপি নেতা ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, ‘এর আগে (কংগ্রেস নেতা) দিগ্বিজয় সিং ওসামাকে ‘ওসামাজি’ এবং হাফিজ সাঈদকে ‘হাফিজ সাহেব’ বলে উল্লেখ করেছিলেন। এবার রাহুল গান্ধী ‘মাসুদ আজহারজি’ বলছেন! কংগ্রেসের একি হল!’ বিজেপি রাহুল গান্ধীর মন্তব্য সম্বলিত ভিডিও নিজেদের টুইটার পেজে শেয়ারও করেছে।

কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সূর্যেওয়ালা পাল্টা জবাবে বলেছেন, ‘রাহুল গান্ধীর কটাক্ষও বোঝার ক্ষমতা নেই বিজেপির। মাসুদ আজহারকে সম্মান দিয়ে নিয়ে গেছেন তো ডোভালই। পাঠানকোটে সন্ত্রাসী হামলার তদন্তের জন্য আইএসআইকে এ দেশে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তো নরেন্দ্র মোদিই।’

এ নিয়ে মঙ্গলবার কংগ্রেসের মুখপাত্র প্রিয়ঙ্কা চতুর্বেদী বিজেপি নেতা রবিশঙ্কর প্রসাদের এক ভিডিও টুইট করেছেন যাতে তিনি হাফিজ সাঈদকে ‘হাফিজজি’ বলে উল্লেখ করেছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে প্রিয়ঙ্কা চতুর্বেদী বলেছেন, ‘আশা করা হচ্ছে এটি বিজেপির ওয়েবসাইটে ভালো জায়গা পাবে যখন তা ঠিক হয়ে যাবে। ওদের এটাও মনে পড়বে যে, যখন তাঁরা বেদপ্রকাশ বৈদিককে হাফিজের সঙ্গে আলিঙ্গন করতে এবং সংলাপের জন্য পাঠিয়েছিলেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘বিজেপি সন্ত্রাসী প্রেমী’ বলে উল্লেখ করে বিজেপির বিরুদ্ধে কংগ্রেস পাল্টা প্রচারে নেমেছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here