ভাষাণচরসহ যে কোনো স্থানেই রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছা স্থানান্তরের ব্যাপারে সরকারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার।

পাশাপাশি যারা যেতে রাজি হবেন, তাদের সাথে কক্সবাজারের রোহিঙ্গাদের সাথে যেন মুক্ত যাতায়াত থাকে সরকারের এ সিদ্ধান্তকেও স্বাগত জানিয়েছেন তিনি।

গত ৮-১০ মার্চ কক্সবাজার পরিদর্শনকালে রাষ্ট্রদূত মিলার শরণার্থী ক্রান ও প্রত্যাবাসন বিষয়ক কমিশনার, বিভাগী কমিশনারসহ স্থানীয় সরকারের কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করেন। সেখানে তিনি আগামী মধ্য এপ্রিলে এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাষাণচরে স্থানান্তরের ব্যাপারে সরকারের পরিকল্পনা শোনেন।

মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস জানায়, রোহিঙ্গা সংকটে মানবিক সহায়তাকরীদের শীর্ষদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র অন্যতম। ২০১৭ সালে রোহিঙ্গা সংকটের পর থেকে ৫০০ মিলিয় মার্কিন ডলার সহায়তা করেছে তারা।

যার প্রায় ৪৫০ মিলিয়ন ছিল বাংলাদশে আসা রোহিঙ্গা ও ক্ষতিগ্রস্থ স্থানীয়দের জন্য।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের আগস্ট থেকে মিয়ানমারের সরকারি বাহিনীর দ্বারা নিপীড়ন ও নির্যাতনের শিকার হয়ে ৮ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে কক্সবাজারের বিভিন্ন স্থানে আশ্রয় নেয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here