দীর্ঘ নয় মাস পর জাতীয় দলে ফিরেছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। ইউরো কোয়ালিফায়ারের ইউক্রেন ও সার্বিয়ার বিপক্ষে দুটি ম্যাচ উপলক্ষে তাকে দলে ডেকেছেন পর্তুগাল কোচ ফের্নান্দো সান্তোস।

গত বছর রাশিয়া বিশ্বকাপে পর্তুগালের হয়ে খেলার পর থেকে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে আর মাঠে নামেননি রোনালদো। বিশ্বকাপের পর এক ধরনের বিশ্রামে ছিলেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। এই সময়ে পর্তুগালের খেলা ছয়টি ম্যাচের একটিতেও দেখা যায়নি আক্রমণভাগের এই খেলোয়াড়কে।

পর্তুগালের হয়ে ১৫৪টি ম্যাচ খেলে ৮৫টি গোল করা রোনালদো সম্প্রতি ক্লাব ইউভেন্তুসের হয়ে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখান। তার হ্যাটট্রিকে শেষ ষোলোর ফিরতি লেগে আতলেতিকো মাদ্রিদকে ৩-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালে ওঠে প্রথম লেগে ২-০ ব্যবধানে হারা মাস্সিমিলিয়ানো আল্লেগ্রির দল।

দীর্ঘ সময় জাতীয় দলের বাইরে থাকা প্রসঙ্গে রোনালদো বলেন, “বিশ্বকাপের পর ইউভেন্তুসে নিজেকে গুছিয়ে নিতে আমার একটি বিরতির দরকার ছিল। আমি আশা করি, আসছে ম্যাচগুলোতে আমি অবদান রাখতে পারব।”

রোনালদোকে ছাড়াই ন্যাশনাল লিগে ইতালি ও পোল্যান্ডকে টপকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয় পর্তুগাল। প্রতিযোগিতাটির উদ্বোধনী আসরে শেষ চারের টিকিটও নিশ্চিত করেছে তারা। জুনে পর্তুগালেই হবে ফাইনাল ফোরের খেলা।

২০১৬ সালে ফ্রান্সে পর্তুগালের ইউরো জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল রোনালদোর। রাশিয়া বিশ্বকাপেও দারুণ খেলছিলেন তিনি। দল শেষ ষোলোর আগেই বিদায় নিলেও ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে উজ্জ্বল ছিলেন ৩৪ বছর বয়সী এই খেলোয়াড়। গ্রুপ পর্বে স্পেনের বিপক্ষে হ্যাটট্রিকসহ করেছিলেন চারটি গোল।

ইউরো ২০২২ এর বাছাই পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আগামী শুক্রবার নিজেদের মাঠে ইউক্রেনের মুখোমুখি হবে পর্তুগাল। পরের সোমবার নিজেদের মাঠেই সার্বিয়ার মুখোমুখি হবে তারা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here