আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশ মোজাম্বিকে ১৭৭ কিলোমিটার গতিতে আঘাত হানা ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ে শত শত মানুষ নিহত হয়েছেন। দেশটির প্রেসিডেন্ট ফিলিপ নিউসি বলেছেন, বৃহস্পতিবার আঘাত হানা ‘সাইক্লোন আইডাই’তে নিহতের সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়ে যেতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় আইডাই বৃহস্পতিবার মোজাম্বিকের বন্দরনগরী বেইরা’তে আঘাত হানলেও উদ্ধারকারী দলগুলো তিনদিন পর রোববার সেখানে পৌঁছাতে সক্ষম হয়। উদ্ধারকারীরা যখন পৌঁছেন তখনও সেখানে জোরেসোরে বাতাস বইছিল এবং নদীগুলোর পানি দুই কূল উপচে পড়ছিল।

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে কংক্রিটের তৈরি বহু ভবনের ছাদ উড়ে গেছে এবং এসব ভবনের ভেতরে মানুষসহ কোনোকিছুরই অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। কর্মকর্তারা এখন পর্যন্ত মোজাম্বিকে ৮৪ জনের লাশ খুঁজে পেয়েছেন তবে নিখোঁজ রয়েছেন শত শত মানুষ।  আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের অন্যান্য দেশ মিলিয়ে এই ঘূর্ণিঝড়ে এ পর্যন্ত অন্তত ৩০০ জনের নিশ্চিত মৃত্যু হয়েছে।

বেইরা শহর পরিদর্শনের পর প্রেসিডেন্ট নিউসি বলেছেন, ঘূর্ণিঝড়ের আঘাত ছিল ভয়াবহ এবং তিনি বন্যার পানিতে লাশ ভেসে যেতে দেখেছেন।

ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব রেড ক্রস এন্ড রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি (আইএফআরসি) এই ঘূর্ণিঝড়কে ‘ভয়াবহ ও ভয়ঙ্কর’ বলে বর্ণনা করেছে।

প্রতিবেশী দেশ জিম্বাবুয়েতে এখন পর্যন্ত ৯৮ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনো ২১৭ ব্যক্তি নিখোঁজ রয়েছেন।

প্রতিবেশী আরেক দেশ মালাবি’তে ঘূর্ণিঝড়ের আগে প্রবল বর্ষণের ফলে সৃষ্ট বন্যঅয় অন্তত ১২২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here