উন্নয়নশীল দেশ হিসাবে বাংলাদেশ যে স্বীকৃতি পেয়েছে সেটা ধরে রাখতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় কমিটি ও বাস্তবায়ন কমিটির যৌথ সভায় তিনি এ কথা বলেন।

অতি দরিদ্রের হার ১১ ভাগে নামিয়ে আনা হয়েছে, ভবিষ্যতে দেশের অতিদরিদ্র বলে কিছু থাকবে না জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী তৃনমূল পর্যায়েও বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালনের আহ্বান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশের গ্রামে দারিদ্রে হাহাকার, থাকার জায়গা নেই, খাওয়া কিছু নেই এই কষ্টগুলো বাবাকে ব্যথিত করেছে এবং সেজন্যই তিনি জীবনের সবকিছু ত্যাগ করে বাংলাদেশের মানুষের জন্য কষ্ট স্বীকার করে গেছেন।’

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘তার কষ্টের কারণেই আমরা স্বাধীন রাষ্ট্রের জাতি হিসেবে পেয়েছি মর্যাদা। দারিদ্রের হার কমিয়ে এনেছি এক সময় বাংলাদেশে হত দরিদ্র বলে কিছু থাকবে না।’

ক্রয়ক্ষমতার সমতা অনুযায়ী (পিপিপি), যাদের দৈনিক আয় ১ ডলার ৯০ সেন্টের কম, তাদের হতদরিদ্র হিসেবে বিবেচনা করা হয়। বিশ্বব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, বাংলাদেশে ১ কোটি ৬২ লাখ মানুষের দৈনিক আয় ১ ডলার ৯০ সেন্টের কম। আন্তর্জাতিক দারিদ্র্যরেখা অনুযায়ী, এরা হতদরিদ্র।

উন্নয়নশীল দেশ হিসাবে বাংলাদেশ যে স্বীকৃতি পেয়েছে সেটা ধরে রাখতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘দেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রেখে শতবার্ষিকীতে জাতির পিতার সোনার বাংলা গড়ে তোলা হবে। জাতীয়ভাবে জন্মবার্ষিকী পালনের জন্য ১০২ সদস্যের জাতীয় কমিটি ও ৬১ সদস্যের বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

সভায় উপস্থিত ছিলেন স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী, সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান, অধ্যাপক ড. রফিকুল আলম, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি বিনিয়োগ ও উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান প্রমুখ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here