যে কোনো উৎসবে পোলাও ছাড়া একেবারেই চলে না। আবার অতিথি আপ্যায়নেও এর কোনো বিকল্প নেই। পোলাও খেতে কম-বেশি সবাই পছন্দ করে। তবে সেটা যদি হয় জাফরানি পোলাও তাহলে তো কোনো কথাই নেই। এটি শুধু খাবারে বৈচিত্র্য আনবে না, বরং আপনি প্রশংসিতও হবেন।

বাসমতী চাল দিয়ে তৈরি মশলাদার ভাতটিই হলো জাফরানি পোলাও। এতে চিনি, কেশর ও ড্রাইফ্রুটের ব্যবহার করা হয়। তাইতো এটি অনেক সুস্বাদু।

আসুন এবার দেখে নেওয়া যাক, কীভাবে বানাবেন জাফরানি পোলাও।

উপকরণ:

বাসমতী চাল – ২ কাপ, কেশর – ১ চা চামচ, কাজু -১ টেবিল চামচ (টুকরো করা), আমন্ড বাদাম – ২ টেবিল চামচ, কিশমিশ – ২ টেবিল চামচ, দুধ – ১/৪ কাপ, পেঁয়াজ – ১টি স্লাইস, লবণ পরিমাণমতো, চিনি পরিমাণমতো, এলাচ গুঁড়ো – ১ চা চামচ, জায়ফল গুঁড়ো – ১ চুটকি, পুদিনা পাতা – ১ চা চামচ, জল – ৪ কাপ।

প্রণালী:

প্রথমে বাসমতী চাল ভাল করে ধুয়ে পরিস্কার করে নিন। এরপর দুধের মধ্যে কেশর প্রায় ১৫ মিনিট ভিজিয়ে রেখে দিন।

একটি কড়াইয়ে এক চামচ ঘি দিন। তাতে ধোয়া বাসমতি চাল দিয়ে ৫-৬ মিনিট ভেজে নিন। খেয়াল রাখবেন আঁচ যেন মাঝারি থাকে। দুধে ভেজানো কেশর, লবণ ও জল দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে দিন। কম আঁচে ১৫ মিনিট চাল হতে দিন। হলে বন্ধ করে নিন।

অন্য একটি পাত্রে ১ টেবিল চা চামচ ঘি গরম করে তাতে পেঁয়াজ দিন। নরম হওয়া পর্যন্ত ভাজুন।পরে চিনি দিন। এভাবে মাঝারি আঁচে ২-৩ মিনিট রান্না করুন।পেঁয়াজে হাল্কা খয়েরি ধরলে তাতে ড্রাইফ্রুটগুলি দিয়ে দিন।১ মিনিট মতো ভেজে আঁচ বন্ধ করে দিন।

এবার চালের মধ্যে পেঁয়াজের মিশ্রণ, এলাচ গুঁড়ো, জায়ফল গুঁড়ো দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন। হাতা দিয়ে মেলাবেন না তাহলে চাল ভেঙে যাবে। কড়াইয়ে ঢাকনা লাগিয়ে ঝাঁকিয়ে ঝাঁকিয়ে পুরোটা মিলিয়ে নিন।

এবার পুদিনা পাতা দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন। ব্যস, হয়ে গেল মজাদার জাফরানি পোলাও।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here