ব্রেক্সিট চুক্তি বাঁচাতে পদত্যাগে রাজি হয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। তিনি প্রতিশ্রিুতি দিয়েছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে সই করা ব্রেক্সিট চুক্তি পাস হলে পরবর্তী ধাপে তিনি ইইউ’র সঙ্গে ভবিষ্যৎ সম্পর্ক নির্ধারণের আলোচনায় তিনি থাকবেন না। গতকাল (বুধবার) নিজ দলের সংসদ সদস্যদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকে থেরেসা মে এ ঘোষণা দেন। তবে পদত্যাগের কোনো দিনক্ষণ উল্লেখ করে ননি তিনি।

ব্রিটিশ পার্লামেন্ট ব্রেক্সিটের নিয়ন্ত্রণ কেড়ে নেয়ায় ভীষণ উদ্বেগে পড়েন ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ দলের ব্রেক্সিটপন্থীরা। ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ থেকে বিচ্ছেদের সুযোগ হাতছাড়া হওয়ার আশঙ্কা তাদের। সে কারণে তারা প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র সম্পাদিত ব্রেক্সিট চুক্তিতে সমর্থনের ইঙ্গিত দিচ্ছেন। তবে এই সমর্থনের বিনিময়ে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে থেরেসা মের সরে দাঁড়ানোর দাবি করেন তারা।

ইইউ’র সঙ্গে সমঝোতার পরবর্তী ধাপ ভবিষ্যৎ সম্পর্ক নির্ধারণের দায়িত্বে ব্রেক্সিটপন্থী কোনো প্রধানমন্ত্রীকে দেখতে চান। এর আগে, ক্ষমতাসীন দলের কট্টর ব্রেক্সিটপন্থী আইনপ্রণেতাদের বিরোধিতার কারণে ব্রেক্সিট চুক্তি পাসে দুই দফা ব্যর্থ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মে। সরকারের শরিক দল ডিইউপিও চুক্তির বিরোধিতায় সরব।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here