১৮৮ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে শেষ ওভারে ব্যাঙ্গালোরের দরকার ছিল ১৭ রান৷ শেষ বলে সমীকরণ দাঁড়ায় কোহলিদের প্রয়োজন ৭ রান৷ সুপার থ্রিলার ম্যাচে শেষ বলে মাত্র ১ রান খরচ করে মুম্বইকে ম্যাচ জেতালেন লসিথ মালিঙ্গা৷ পোড় খাওয়া লঙ্কান পেসার শেষ ওভারে খরচ করলেন মাত্র ১০ রান৷ ৬ রানে ম্যাচ জিতল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷

অপর দিকে দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের মুখ দেখলো রোহিত শর্মার মুম্বাই। শুরুতে টস জিতে মুম্বাইকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বেঙ্গালুরু। টপ অর্ডারের সহায়তায় ৮ উইকেটে ১৮৭ রানের বড় পুঁজি পায় তারা। অধিনায়ক শর্মার ব্যাট থেকে আসে ৩৩ বলে সর্বোচ্চ ৪৮ রান। লেজের দিকে হার্দিক পান্ডিয়ার মিনি ঝড়ে ১৪ বলে আসা ৩২ রান স্কোরবোর্ড সমৃদ্ধ করে মুম্বাইয়ের। চারটি উইকেট নেন বেঙ্গালুরুর চাহাল।

তাড়া করার লক্ষ্য নিয়ে শুরুটা দারুণ করেছিলো বেঙ্গালুরু। দুটি উইকেট পড়লেও এবি ডি ভিলিয়ার্স ও কোহলি জুটি গড়ে জয়ের সমূহ সম্ভাবনা তৈরি করেছিলেন। ৩২ বলে ৪৬ রান করা কোহলির উইকেটসহ বুমরাহ আরও দুটি উইকেট নিলে ম্যাচের মোড় ঘুরে যায়। ছন্দ পতন ঘটে তাদের।

ডি ভিলিয়ার্স শেষ ওভার পর্যন্ত টিকে থেকে আশা বাঁচিয়ে রেখেছিলেন। কিন্তু শেষ ওভারে মালিঙ্গার বোলিংয়ের কাছে অসহায় ছিলো তারা। ৬ বলে প্রয়োজন ছিলো ১৭ রান। ১০ রান আসে শেষ ওভারে। বেঙ্গালুরু করতে পারে ৫ উইকেটে ১৮১ রান। অবশ্য শেষ বলটি নো হয়েছিলো মালিঙ্গার। কিন্তু আম্পায়ারের চোখ এড়িয়ে যাওয়ায় হারই নিয়তি হয়ে দাঁড়ায় বেঙ্গালুরুর।
৪১ বলে ডি ভিলিয়ার্স অপরাজিত থাকেন ৭০ রানে। তাতে ছিলো ৪টি চার ও ৬টি ছয়। ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেওয়া জাসপ্রিত বুমরাহ হন ম্যাচসেরা।

আইপিএলে এবার বিতর্ক কিছুতেই থামছে না। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের ‘মানকাড’ আউটের পর এবার ‘নো বল’ বিতর্ক রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মধ্যকার ম্যাচে। যার বড় খেসার দিতে হয়েছে বিরাট কোহলির দল বেঙ্গালুরুকে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here