বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন একুশে পদকপ্রাপ্ত কণ্ঠশিল্পী খুরশীদ আলম। শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে বগুড়া শহরতলীর ঝোপগাড়ি এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

শিল্পীকে বহনকারী প্রাইভেটকারটি ট্রাকের ধাক্কায় দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এ সময় ওই প্রাইভেটকারের চালকসহ শিল্পীর সহযাত্রী খোকন নামে স্থানীয় এক ব্যবসায়ীও আহত হন। দুর্ঘটনার পরপরই খুরশীদ আলমকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

জানা গেছে, বগুড়াস্থ জয়পুরহাট কল্যাণ ট্রাস্ট’র উদ্যোগে শুক্রবার খুরশীদ আলমকে সম্মাননা প্রদান  ও ভ্রাতৃত্ব মিলনমেলার আয়োজন করা হয়।

ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তিনি শুক্রবার বগুড়া শহরতলীর নওদাপাড়া এলাকায় মম-ইন নামের তারকাখচিত হোটেলে আসেন। অনুষ্ঠান শেষে সেখানেই তার রাত্রী যাপনের কথা ছিল।

জয়পুরহাট কল্যাণ ট্রাস্ট’র সদস্যরা জানান, রাত দেড়টার দিকে তিনি তার পূর্বপরিচিত ব্যবসায়ী খোকনের প্রাইভেটকারে শহরে যান। শহরে ঘোরাফেরা শেষে মহাসড়ক হয়ে তারা হোটেলে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে ঝোপগাড়ি এলাকায় দ্রুতগামী একটি ট্রাক প্রাইভেটকারটিকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। একইসঙ্গে আহত হয়েছেন চালক ও ব্যবসায়ী খোকন।

বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক আব্দুল আজিজ মন্ডল জানান, রাত তিনটার পর স্থানীয় লোকজন খুরশীদ আলমকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসে। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসার পর তাকে ওর্য়াডে স্থানান্তর করা হয়েছে।

শনিবার সকালে শজিমেক হাসপাতালের নিউরো মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসক ডা. সুশান্ত কুমার সরকার আহত শিল্পীর চিকিৎসা শুরু করেছেন।

তিনি সাংবাদিকদের জানান, ওই দুর্ঘটনায় খুরশীদ আলম মাথায় আঘাত পেয়েছেন। এছাড়াও দুর্ঘটনায় তার কয়েকটি দাঁত ভেঙে গেছে। তিনি আগের তুলনায় কিছুটা সুস্থ আছেন বলেও উল্লেখ করেন এই চিকিৎসক।

উল্লেখ্য, এই গুণী কণ্ঠশিল্পীর জন্ম ১৯৪৬ সালে। জয়পুরহাটের কারাই উপজেলায় পৈত্রিক নিবাস হলেও তার বেড়ে ওঠা পুরান ঢাকার আলাউদ্দীন রোড এলাকায়। তিন ভাই, দুই বোনের মধ্যে সবার বড় খুরশীদ আলম।

খুরশীদ আলমের গাওয়া অনেক গান রয়েছে জনপ্রিয়তার তালিকায়। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- ‘মাগো মা, ওগো মা, আমারে বানাইলি তুই দিওয়ানা’, ‘তোমরা যারা আজ আমাদের ভাবছো মানুষ কি না’, ‘চুমকি চলেছে একা পথে’, ‘বন্দি পাখির মতো মনটা কেঁদে মরে’ ইত্যাদি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here