সময়ের ক্রিকেট সেনসেশন তো আর তাকে এমনি এমনি বলা হয় না। ক্রিকেটে প্রতিনিয়ত দিয়ে যাচ্ছেন নিজেকে উজাড় করে যিনি। যিনি ক্যারিয়ার সাজাচ্ছেন নিজের মতো করে। কাজে কর্মে তার পরীক্ষাও দিয়েছেন বারবার। কয়েক বছর ধরেই স্বপ্নের মতো কাটাচ্ছেন সময়। একের পর এক রেকর্ড গড়ে চলেছেন যিনি। সেই ওয়ান্ডার বয় আর কেউ নন, তিনি হলেন ভারতের ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

ইতোমধ্যে গড়েছেন আরো এক অনন্য রেকর্ড। সম্প্রতি উইজডেনের ‘সেরাদের সেরায়’ হ্যাট্রিক করেছেন তিনি। ‘ক্রিকেটের বাইবেল’খ্যাত এই বর্ষপঞ্জির এবারের সংখ্যায় ‘লিডিং ক্রিকেটার’ অর্থাৎ শীর্ষ ক্রিকেটার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন কোহলি। এ নিয়ে টানা তৃতীয় (২০১৬, ২০১৭, ২০১৮) বছর উইজডেন অ্যালমানাকে ‘লিডিং ক্রিকেটার’-এর খেতাব জিতলেন ভারতীয় এই অধিনায়ক।

উইজডেন দুই বিভাগে সেরাদের বাছাই হবে। লিডিং ক্রিকেটার আসলে সেরাদের সেরা। কারণ বর্ষসেরা হিসেবে পাঁচজনকেও বেছে নেয় উইজডেন। আজ প্রকাশিত চলতি বছরের এই (১৫৬তম) সংস্করণে বেছে নেয়া পাঁচ বর্ষসেরা ক্রিকেটারের একজনও কোহলি।

উইজডেন আজ বুধবার ২০১৮ সালের জন্য বিশ্বের শীর্ষ ক্রিকেটারের নাম ঘোষণা করেছে। তাদের চোখে গেল বছরের শীর্ষ ক্রিকেটার হয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ভারতীয় অধিনায়কের জন্য এবারের স্বীকৃতিটা বিশেষ গৌরব বয়ে এনেছে।

অবিস্মরণীয় এই স্বীকৃতির পাশাপাশি বছরের সেরা পাঁচ ক্রিকেটারের তালিকায়ও কোহলিকে রেখেছে উইজডেন। জস বাটলার, স্যাম কারেন, ররি বার্নস ও নারী ক্রিকেটার ট্যামি ব্যুমন্টের পাশাপাশি ২০১৮ সালের বর্ষসেরা পাঁচ ক্রিকেটারের একজন হয়েছেন কোহলি। আর বছরের শীর্ষ নারী ক্রিকেটার হয়েছেন ভারতীয় প্রমীলা ক্রিকেট দলের স্মৃতি মান্ধানা।

এর আগে, টানা তিন বছর উইজডেনের শীর্ষ ক্রিকেটারের তালিকায় ছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটার। তবে একজন নয়, দুই কিংবদন্তি বিরেন্দর শেবাগ ও শচীন টেন্ডুলকার মিলে শীর্ষস্থান পেয়েছিলেন টানা তিন বছর। ২০০৮ ও ২০০৯ সালে শেবাগের পর ২০১০ সালে শচীনকে দেয়া হয় সম্মানজনক এই স্বীকৃতি। আজ টানা তৃতীয়বারের মতো এই স্বীকৃতি অর্জন করে তাদের ছাড়িয়ে গেছেন কোহলি।

২০১৮ সালটা স্বপ্নের মতো কেটেছে ভারতীয় অধিনায়কের। ক্রিকেটের তিন ফরম্যাট মিলিয়ে মোট ২,৭৩৫ রান করেছেন গেলো বছরে। অবিশ্বাস্য ফর্মের ধারাবাহিকতায় টেস্টে পাঁচটি ও ওয়ানডেতে ছয়টি সেঞ্চুরি করেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের ‘পোস্টার বয়’। তার নেতৃত্বেই অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথমবারের মতো টেস্ট সিরিজ জিতে নেয় ভারত।

এদিকে, টি-টোয়েন্টিতে শীর্ষ ক্রিকেটার হিসেবে স্বীকৃত হয়েছেন আরেক আফগান স্পিন বোলিং জিনিয়াস রশিদ খান। ২০১৮ সালে টি-টোয়েন্টিতে আফগানদের হয়ে মাত্র ৮.৬৮ গড়ে ২২টি উইকেট নেন এই লেগস্পিনার।

এছাড়া, আইপিএলের গত আসরে নেন ২১টি উইকেট। শীর্ষ নারী ক্রিকেটারের স্বীকৃতি পাওয়া স্মৃতি মান্ধানা গতবছর ভারতের প্রমীলা দলের হয়ে ৬৬৯ ওয়ানডে রানের পাশাপাশি টি-টোয়েন্টিতে করেন ৬৬২ রান।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here