কুইন্টন ডি ককের ঝড়ো হাফসেঞ্চুরিতে রাজস্থান রয়্যালসকে বড় টার্গেট দিয়েও স্বস্তিতে ছিল না মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। লক্ষ্যে নেমে রাজস্থানও দারুণ শুরু করে। কিন্তু শেষ দিকে মাত্র ৪ রানের ব্যবধানে তাদের ৪ উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচে উত্তেজনা ফেরায় মুম্বাই। যদিও চমৎকার শুরুর পুরস্কার রাজস্থান পেয়েছে ৪ উইকেটের জয়ে।

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে শনিবার দিনের প্রথম ম্যাচে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে ৫ উইকেটে ১৮৭ রান করেছিল মুম্বাই। জবাবে ৩ বল হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করে রাজস্থান। কুইন্টন ডি কক ৮১ রানের ইনিংস খেলেছিলেন মুম্বাইয়ের পক্ষে। তবে ৮৯ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচের ফল নির্ধারণ করে দিয়েছেন রাজস্থানের বাটলার।

এদিন অধিনায়ক রোহিত শর্মা ও কুইন্টন ডি ককের ব্যাটে দারুণ শুরু পায় মুম্বাই। উদ্বোধনী জুটিতে ৯৬ রান যোগ করেন দুজন। রোহিত ৩২ বলে ৪৭ রান করে ফেরেন। ১ টি ছক্কার সঙ্গে মেরেছেন ৬টি করে চার।

তবে ডি কক তুলে নেন আসরে নিজের দ্বিতীয় ফিফটি। ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে তিনি সেঞ্চুরির সম্ভাবনাও জাগালেন। তবে জফরা আর্চারের বলে ফিরতে হয় তাকে। ৫২ বলে ৮১ রানের ইনিংসটি তিনি সাজান ৪ ছক্কা ও ৬ চারে। হার্দিক পান্ডিয়া অপরাজিত ২৮ রান করেন। রাজস্থানের পক্ষে সর্বাধিক ৩ উইকেট নিয়েছেন আর্চার।

১৮৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে রাজস্থানকে দারুণ শুরু এনে দেন আজিঙ্কা রাহানে ও বাটলার। দুজন উদ্বোধনী জুটিতে যোগ করেন ৬০ রান। রাহানে ৩৭ রানে ফেরেন। বাটলার ৪৩ বলে ৭ ছক্কা ও ৮ চারে ৮৯ রান করেন। তিনি মুম্বাই বোলারদের দ্বিতীয় শিকার হন। ১৩.২ ওভারে স্কোর বোর্ডে ১৪৭ রান যোগ করে তখন জয়ের পথ তৈরি করে ফেলেছে রাজস্থান।

তবে একপর্যায়ে মাত্র ৪ রানের ব্যবধানে রাজস্থান ৪ উইকেট হারালে নাটকের আভাস মেলে। ২ উইকেটে ১৭০ থেকে ৬ উইকেটে ১৭৪ রানে পরিণত হয় রাজস্থান। শ্রেয়াস গোপাল অপরাজিত ১৩ রানে অবশ্য দলের জয় নিশ্চিত করেন।

৭ ম্যাচে ২ জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের সপ্তম স্থানে আছে রাজস্থান। আর ৭ ম্যাচে তৃতীয় হারের স্বাদ পাওয়া মুম্বাই ৮ পয়েন্ট নিয়ে আছে তৃতীয় স্থানে। এই হারে দলটি দ্বিতীয় স্থানে ওঠার সুযোগ হারাল।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here