অবশেষে অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ দল দিয়েই প্রত্যাবর্তন করলেন স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার। সোমবার ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া।

স্মিথ-ওয়ার্নারের আসাটা কারো কারো জন্য যে দুর্ভাগ্য বয়ে আনতে পারে তা টের পাওয়া গিয়েছিলো আগেই। সেই হতভাগারা হলেন পিটার হ্যান্ডসকম্ব ও জশ হ্যাজেলউড।

বল টেম্পারিংয়ের কারণে ১২ মাসের নিষেধাজ্ঞা প্রাপ্ত স্মিথ-ওয়ার্নার দুজনের শাস্তি শেষ হয় গত মার্চের শেষ দিকে। এই প্রত্যাবর্তনের ফলে জাতীয় দলের কেন্দ্রীয় চুক্তির আওতাতেও চলে এলেন অভিজ্ঞ দুই ক্রিকেটার।

পাকিস্তান সিরিজে ফেরার কথা থাকলেও স্মিথ-ওয়ার্নার প্রস্তুতি সেরে নিচ্ছেন আইপিএল দিয়ে। চোটের কারণে বিপিএল থেকে ছিটকে যান দুজন।

১৫ সদস্যের দলে বোলিং বিভাগ বিবেচনায় নিলে শক্তিশালী ইউনিট অস্ট্রেলিয়ার। ৫ পেস বোলারের  মাঝে রয়েছেন মিচেল স্টার্ক। অবশ্য দল ঘোষণা করা হলেও এই দলের পরিবর্তন করা সম্ভব মে মাসের ২৩ তারিখের মাঝে। তাতে আইসিসির অনুমোদন অবশ্যই প্রয়োজন তখন।

এমন স্কোয়াড গড়তে গিয়ে বিপাকে পড়তে হয়েছে নির্বাচকদের। তা স্বীকার করেছেন নির্বাচক ট্রেভর হনস। তিনি জানান, ‘যেমন প্রতিভা রয়েছে তাতে সিদ্ধান্ত নেওয়াটা সহজ ছিলো না। দুর্ভাগ্যবশত সম্প্রতি ভারত ও আরব আমিরাত সফর থেকে পিটার হ্যান্ডসকম্ব, অ্যাস্টন টার্নার ও কেন রিচার্ডসনকে রাখা যায়নি। তবে তাদের অস্ট্রেলিয়া এ দলের ইংল্যান্ড সফরে বিবেচনা করা হয়েছে।’

অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ দল:

অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, স্টিভেন স্মিথ, উসমান খাজা, শন মার্শ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টইনিস, অ্যালেক্স ক্যারেই (উইকেটরক্ষক), প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, ঝাই রিচার্ডসন, নাথান কোল্টার নাইল, জেসন বেহরেনড্রফ, অ্যাডাম জাম্পা ও নাথান লায়ন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here