ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে ৮৫০ বছরের প্রাচীন স্থাপত্য নটর ডেম ক্যাথেড্রালের আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে বলে জানানো হয়েছে দেশটির ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে। প্রায় ৪০০ জন কর্মীর ৪ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে নিরলস চেষ্টার পর নিয়ন্ত্রণে আসে আগুন। এ ঘটনায় হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

দেশটির স্থানীয় সময় সোমবার বিকালে এ ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনে ভবনটির ছাদ ও প্রধান চূড়া ভেঙে গেলেও পাশ্ববর্তী দুটি টাওয়ারসহ প্রধান কাঠামো রক্ষা পেয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছে দেশটির ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা।

৮৫০ বছরের পুরনো ক্যাথেড্রালটি ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের উপাসনালয় (চার্চ) হলেও এর সাথে জড়িয়ে আছে প্রায় হাজার বছরের শিল্প-সংস্কৃতির ইতিহাস।

অগ্নিকান্ডের খবরে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, ঘটনার দিন বিকালে গির্জার ওপরের অংশ থেকে ধোঁয়া দেখতে পান স্থানীয়রা। এরপরই ভয়াবহ আগুনের শিখা দেখা যায়। তবে কি কারণে আগুন লেগেছে তা তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে ফ্রান্স টু টেলিভিশনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এ ঘটনাকে প্রাথমিকভাবে দুর্ঘটনা হিসেবে দেখছে দেশটির পুলিশ। এ ঘটনার পর প্যারিসের মেয়র অ্যানে হিডালগো টুইটারে একটি পোস্ট দেন, সেখানে তিনি লিখেন, ‘নটর ডেম ক্যাথেড্রালে ভয়াবহ আগুন।’

এছাড়া এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পসহ বিভিন্ন দেশ ও বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ।

ঐতিহাসিক নটরডেম ক্যাথেড্রালের নির্মাণকাজ শুরু হয়েছিল খ্রিস্টীয় একাদশ শতকে। প্রায় একশ বছর লাগে এর কাজ সম্পন্ন হতে। এরপর বেশ কয়েকবার ভবনটির সংস্কার কাজ করা হয়। ফরাসি বিপ্লবের সময় ক্যাথেড্রাল বেশ ক্ষতির মুখে পড়ে। পরবর্তীতে ভিক্টর হুগোর জগদ্বিখ্যাত উপন্যাস ‘হ্যাঞ্চব্যাক অফ নটরডেম’ প্রকাশিত হওয়ার পর নতুন করে এই ক্যাথেড্রালটি সবার সামনে আসে।

বিশ্বের অন্যতম নিদর্শন প্যারিসের এই ক্যাথেড্রাল দেখতে প্রতি বছর লাখ লাখ পর্যটক ভিড় জমান।

জানা যায়, সপ্তাহ ধরে প্রাচীন এ ক্যাথেড্রালের সংস্কার কাজ চলছিল। কয়েকদিন আগেই ক্যাথেড্রাল থেকে ব্রোঞ্জ মূর্তি সরিয়ে নেওয়া হয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here