ঘূর্ণিঝড় ফণী আসছে বাংলাদেশের দিকে। এর তীব্রতা আগের থেকে আরও বেড়েছে। ৪ নম্বর সতর্কতা সংকেত থেকে এখন ৭ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। আমাদের প্রচেষ্টা থাকবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সর্বনিম্ন পর্যায়ে কমিয়ে আনা। বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে অগ্নিদুর্ঘটনা প্রতিরোধে মন্ত্রিসভা বৈঠকের আলোচনা অনুযায়ী যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ এবং বিভিন্ন সংস্থার কাজের সুষ্ঠু সমন্বয় সাধনসংক্রান্ত সভার আগে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আবহাওয়া অধিদপ্তরের নির্ধারিত সময় অনুযায়ী বাংলাদেশে হয়তো আঘাত হানবে এই ঘূর্ণিঝড়। সে জন্য আমাদের প্রস্তুতি কী কী আছে সেই বিষয়ে আলোচনা হবে।

তিনি বলেন, আমাদের ফায়ার সার্ভিস, নিরাপত্তা বাহিনী এবং অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টরা যারা কাজে নিয়োজিত থাকবেন তাদের প্রস্তুতি কী রকম আছে তা নিয়ে আমরা আলোচনা করবো। দেশের উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষ এরইমধ্যে জেনে গেছেন, তাই তারা সেভ জায়গায় চলে যাওয়ার জন্য তৈরি হয়েছেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, উপকূলে জনসেবায় যারা নিয়োজিত থাকেন, তারা অভিজ্ঞ এবং সাধারণ মানুষকে সেভ করতে পারবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি। নিরাপত্তাজনিত সচেতনতা নিয়ে প্রতিটি জেলায় সভা হচ্ছে। উপজেলাগুলোতেও সভা হচ্ছে এবং সবগুলো এলাকায় করণীয় সম্পর্কে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ফায়ার সার্ভিস আমাদের প্রতিটি উপজেলায় রয়েছে। তাদের প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের আজকের সভায় নিরাপত্তাবাহিনীর প্রতিনিধিরা উপস্থিত আছেন। সব বাহিনীকে দিকনির্দেশনা দেয়া হবে। সকল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর যথেষ্ট অভিজ্ঞতা রয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here