ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো রাশিয়ার কারণে দেশত্যাগ করেননি বলে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও যে অভিযোগ করেছেন তা উড়িয়ে দিয়েছেন রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা। তিনি পম্পেও’র বক্তব্যকে ‘মিথ্যা’ আখ্যায়িত করে বলেছেন, ভেনিজুয়েলার সেনাবাহিনীকে বিভক্ত করার জন্য আমেরিকা সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে।

পম্পেও সম্প্রতি দাবি করেছিলেন, ভেনিজুয়েলার চলমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতির কারণে প্রেসিডেন্ট মাদুরো দেশত্যাগ করতে চেয়েছিলেন কিন্তু রাশিয়া তাকে এ কাজে বাধা দিয়েছে।

মারিয়া জাখারোভা মার্কিন নিউজ চ্যানেল সিএনএনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ভেনিজুয়েলার বৈধ সরকারের বিরুদ্ধে ‘তথ্যযুদ্ধ’ চালানোর জন্য আমেরিকা যেকোনো ‘মিথ্যা খবর’ প্রচার করতেও দ্বিধা করছে না। মাদুরোর দেশত্যাগ সম্পর্কে পম্পেও’র সাম্প্রতিক বক্তব্যকে তিনি এ ধরনেরই একটি কাজ বলে মন্তব্য করেন।

এর আগে গতরাতে জাখারোভা জাতিসংঘ সাধারণে পরিষদের বৈঠকের অবকাশে সতর্ক করে দিয়ে বলেছিলেন, ভেনিজুয়েলার ব্যাপারে আমেরিকা যে নীতি গ্রহণ করেছে তা অত্যন্ত বিপজ্জনক এবং দেশটির অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আমেরিকার হস্তক্ষেপ দেশটিকে শোচনীয় অবস্থায় নিয়ে যোত পারে।

গত জানুয়ারি মাসে আমেরিকার পূর্ণ সমর্থন নিয়ে গুয়াইদো এক জনসভায় নিজেকে ভেনিজুয়েলার অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন। তার এ ঘোষণার পর দেশটিতে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা চরম আকার ধারণ করে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মাদুরো সরকারকে উৎখাতের জন্য ভেনিজুয়েলার ওপর অর্থনৈতিক চাপ জোরদার করেন এবং একাধিকবার দেশটিতে সামরিক হস্তক্ষেপের হুমকি দেন।

সর্বশেষ মঙ্গলবার গুয়াইদো ভেনিজুয়েলার মুষ্টিমেয় সেনা সদস্যকে ব্যবহার করে দেশটিতে সামরিক অভ্যুত্থান ঘটানোর যে চেষ্টা করেছিলেন তা ব্যর্থ করে দিয়েছে মাদুরো সরকার।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here