কিশোরগঞ্জের পৃথক এলাকায় বজ্রপাতে চারজন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার জেলার বিভিন্ন স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন-পাকুন্দিয়া উপজেলার কুরশাকান্দি এলাকার আসাদ মিয়া (৬০), ইটনা উপজেলার হনপুর এলাকার রবিন দাস (২৫) এবং মিঠামইন এলাকার মহিউদ্দিন (৪৮) ও সুমন (২৮)। স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, শুক্রবার দুপুরে পাকুন্দিয়া উপজেলায় বজ্রপাত ঘটে।

অন্যদিকে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে ইটনা ও মিঠামইন উপজেলায় বজ্রপাতের আঘাতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

মিঠামইন থানার ওসি মো. জাকির রাব্বানী বলেন, কেওয়ারজোড় ইউনিয়নের কুড়ারকান্দি গ্রামের হাওরে বৃষ্টিপাতের মধ্যে গরু আনতে গিয়ে সুমন মিয়া বজ্রপাতের শিকার হয়। এছাড়া একই সময় উপজেলার বৈরাটি ইউনিয়নের বিরামচর গ্রামের হাওরের জমিতে বোরো ধান কাটার সময় বজ্রপাত হলে মহিউদ্দিন মারা যান। আসাদ মিয়া মারা যান নিজের বাড়ির সামনে জমিতে গরুর জন্য ঘাস কাটার সময়।

পাকুন্দিয়া থানার ওসি মোহাম্মদ ইলিয়াস বলেন, বেলা সাড়ে ১২টার দিকে আসাদ ঘাস কাটার সময় বৃষ্টিপাত শুরু হয়। এ সময় বজ্রপাত হলে আসাদ নিহত হন।

ইটনা থানার ওসি মোহাম্মদ মুর্শেদ জামান জানান, বেল সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের কাঠুইর গ্রামের হাওরে রুবেল ধান কাটা শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে আচমকা বৃষ্টিপাত শুরু হয়। এ সময় বজ্রপাতে রুবেল আহত হন। তাকে উদ্ধার করে ইটনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here