রাশিয়ার উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ জোর দিয়ে বলেছেন, আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা এবং হুমকি সত্ত্বেও বিভিন্ন ক্ষেত্রে ইরানের সঙ্গে তার দেশের সম্পর্ক ও সহযোগিতা বন্ধ হবে না। তিনি গতকাল (শনিবার) মস্কোয় এক বক্তব্যে বলেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও পরমাণু কর্মসূচি’সহ অন্যান্য ক্ষেত্রগুলোতে ইরানের সঙ্গে রাশিয়ার সহযোগিতা আগের মতো চলবে।

রাশিয়া নিজেই ২০১২ সাল থেকে আমেরিকার অবৈধ নিষেধাজ্ঞার মোকাবিলা করে এসেছে বলে উল্লেখ করেন রিয়াবকভ। তিনি বলেন, ওয়াশিংটনের এ রকম অবৈধ পদক্ষেপের সঙ্গে মস্কো নিজেকে মানিয়ে নিয়েছে। রুশ উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় আক্রান্ত হওয়ার ক্ষেত্রে ইরান ও রাশিয়ার অভিন্নতার কথা উল্লেখ করে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেন, তেহরান ও মস্কো কখনোই ওয়াশিংটনের চাপের কাছে নতি স্বীকার করবে না।

মার্কিন সরকার শুক্রবার রাতে পরমাণু সমঝোতা ও জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাব লঙ্ঘন করে ইরানের পরমাণু কর্মসূচিতে দেয়া তিনটি ছাড় প্রত্যাহার করে নেয়। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, ইরানের বুশেহর পরমাণু প্রকল্পের বর্তমান চুল্লির বাইরে অন্য কোনো প্রকল্পে কোনো দেশ তেহরানকে সহযোগিতা করতে পারবে না। এ ছাড়া, প্রাকৃতিক ইউরেনিয়ামের পরিবর্তে ইরান থেকে সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম বিদেশে স্থানান্তর প্রক্রিয়াও এখন থেকে নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসবে। এ ছাড়া, ইরানে উৎপাদিত ভারী পানি আর মজুদ করা যাবে না।

পরমাণু সমঝোতায় ইরানকে ৩.৬৭ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অনুমতি দেয়া হলেও মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই বিবৃতিতে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার তৎপরতা পুরোপুরি বন্ধ করার জন্য ইরানের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

মার্কিন সরকার এই পদক্ষেপের মাধ্যমে কার্যত ইরানের পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়ন থেকে আমেরিকা ছাড়া বাকি পাঁচ জাতিগোষ্ঠীকে বিরত থাকার আহ্বান জানাল। এতদিন ওই পাঁচ দেশ বলে আসছিল তারা আমেরিকাকে ছাড়াই পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়ন করবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here