ভারতের ক্ষমতাসীন হিন্দুত্ববাদী বিজেপিকে দেশের ‘সবচেয়ে বড় বিপদ’ বলে  অভিহিত করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। লোকসভা নির্বাচন উপলক্ষে গতকাল (রোববার) গোয়ালতোড়ে দলীয় সমাবেশে ভাষণ দেয়ার সময় তিনি ওই মন্তব্য করেন।

মমতা বলেন ‘এটা হল দিল্লির নির্বাচন। মনে রাখবেন দেশের সবচেয়ে বড় বিপদ, সবচেয়ে বড় দুর্যোগ আজকে বিজেপি দল। এই দলকে ক্ষমতা থেকে না সরালে আগামীদিন দেশ বাঁচবে না। আদিবাসী বলুন, তপশিলি বলুন, সংখ্যালঘু বলুন, সাধারণ মানুষই বলুন কেউ বাঁচবে না। সেজন্য সবার আগে এদেরকে পরাজিত করতে হবে।’

তিনি উপস্থিত জনতার উদ্দেশে বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদি তো পাঁচ বছর প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। জিজ্ঞেস করুন ওই বিজেপি’র নেতাদের যারা এক হাতে ঝাণ্ডা অন্য হাতে ডাণ্ডা, তৈরি হয়েছে কতগুলো গুণ্ডা! আর করে শুধু পাণ্ডাগিরি। ওদের পাণ্ডাগুলোকে জিজ্ঞেস করুন তোমাদের নরেন্দ্র মোদি গত পাঁচ বছরে কী উন্নয়ন করেছে?’

বিজেপির সমালোচনা করে মমতা বলেন, ‘আমরা দাঙ্গা বাঁধাতে দিই না। দাঙ্গায় বিশ্বাস করবেন না। অনেক আগুন জ্বালিয়েছে ওরা। অনেক মানুষকে হত্যা করেছে। দাঙ্গায় লোক মারা যায়। দাঙ্গায় ঘরবাড়ি পুড়ে যায়। দাঙ্গায় মারা গেলে কী সাংঘাতিক দাঙ্গা হয় কল্পনা করতে পারবেন না! নরেন্দ্র মোদির অভিজ্ঞতা আছে। তাঁর গুজরাটে অনেক দাঙ্গা তিনি করিয়েছেন তো নিজে সেজন্য উনি সেটা জানেন। আমরা দাঙ্গা করতে দিই না।’

কেন্দ্রীয় সরকার বছরে ২ কোটি বেকারের কর্মসংস্থানের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে এবং নোট বাতিলের ফলে তিন কোটি ছেলে মেয়ের চাকরি চলে গেছে বলে মমতা মন্তব্য করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন,  (বিজেপিশাসিত) উত্তর প্রদেশে যারা চামড়া শিল্পে কাজ করতেন তাদের মধ্যে দু’লাখ মানুষ বেকার হয়ে গেছেন। পশ্চিমবঙ্গে যারা যে কাজ করতেন তারা সেই কাজ করছেন বলেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় মন্তব্য করেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here