বিশ্বকাপের আগে ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে মানিয়ে নেওয়ার চ্যালেঞ্জে হার দিয়ে শুরু হলো পাকিস্তানের। রবিবার একমাত্র টি-টোয়েন্টিতে তাদের বিপক্ষে ৭ উইকেটে জিতেছে ইংল্যান্ড।

কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সে বাবর আজম ও হারিস সোহেলের ফিফটিতে ৬ উইকেটে ১৭৩ রান করে পাকিস্তান। জবাবে এউইন মরগানের ঝড়ো ইনিংসে ১৯.২ ওভারে ৩ উইকেটে ১৭৫ রান করে ইংল্যান্ড

রোববার আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩১ রানের মধ্যে দুই ওপেনার ফখর জমান (৭) ও ইমাম-উল-হককে (৭) হারিয়ে বিপদে পড়ে পাকিস্তান। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে টম কারান ফেরানকে ফখরকে। এদিকে পঞ্চম ওভারের পঞ্চম বলে আর্চার সরাসরি রান আউটে সাজঘরের পথ দেখান ইমামকে। এরপর অবশ্য সফরকারীদের হাল ধরেন বাবর ও হারিস সোহেল। তৃতীয় উইকেটে তারা দলীয় স্কোর বোর্ডে যোগ করেন ১০৩ রান। তাতে বড় স্কোরের স্বপ্নই দেখছিল দলটি। কিন্তু দ্রুতই তাদের বিদায়ে পাকরা নির্ধারিত ওভার শেষে থামে ১৭৩ রানে।

ইংল্যান্ডের হয়ে জার্ফা আর্চার ৪ ওভারে ২৯ রানে নিয়েছেন ২টি উইকেট। এদিকে ডেভিড উইলি ও টম কারান আর ক্রিস জর্ডান নেন ১টি করে উইকেট।

রান তাড়ায় ইংল্যান্ডের শুরুটাও ভাল হয়নি। দলীয় ২১ রানেই বেন ডাকেট ফিরে যান সাজঘরে।  ইনিংসের তৃতীয় ওভারের তৃতীয় বলে ইমাদ তাকে উইকেটের পেছনে ধরা পড়ান। এরপর অবশ্য সফরকারীদের হতাশ করেন জো রুট। দ্বিতীয় উইকেটে এ ডানহাতি জেমস ভিন্সকে নিয়ে গড়েন ৪৫ রানের জুটি। তাতে দারুণভাবে জয়ের পথে হাঁটে স্বাগতিকরা।

শেষ পর্যন্ত দলীয় ৬৬ রানে ভিন্সকে ব্যক্তিগত ৩৬ রানে ফিরিয়ে পাকদের আশা বাঁচিয়ে রাখেন শাহেন শাহ আফ্রিদি। কিন্তু মহূর্তের মধ্যে সফরকারীদের হতাশ করেন মরগান। ইংলিশ অধিনায়ক ২২ গজে নেমেই তোলেন ঝড়। শেষ পর্যন্ত ৫ চারে ৪২ বলে ৪৭ রানে রুটকে হাসান আলি ফিরিয়ে দিলেও কোন লাভ হয়নি পাকদের। যা করার তা একাই করে দিয়েছেন মরগান। এ ডানহাতি শেষ পর্যন্ত পাক বোলারদের মাটিতে নামিয়ে ইংল্যান্ডের ৭ উইকেটের দারুণ এক জয় এনে দিয়েছেন।

পাকিস্তানের হয়ে ইমাদ, শাহেন শাহ আফ্রিদি ও হাসান আলি নেন ১টি করে উইকেট।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here