মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনে দুর্ঘটনার কবলে পড়া বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটটি ভেঙে তিন টুকরা হয়ে গেছে। এভিয়েশন সেইফটি নেটওয়ার্ক জানিয়েছে, উড়োজাহাজটির ফিউজিলাজ ভেঙে তিন টুকরো হয়ে গেছে, তলাও ফেটে গেছে। তবে দুর্ঘটনার পর ওই বিমানে আগুন ধরেনি।

মিয়ানমারসহ আন্তর্জাতিক কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে বিমানের ড্যাশ-৮ ফ্লাইটটি ভেঙে তিন টুকরা হওয়ার খবর প্রকাশিত হয়।

এ দুর্ঘটনায় ফ্লাইটে থাকা ৩৩ আরোহীর অনেকে আহত হলেও সবাই শঙ্কামুক্ত। আরোহীদের মধ্যে বাংলাদেশিদের আনতে বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইট ইয়াঙ্গুন যাচ্ছে।

বাংলাদেশ অ্যাভিয়েশন হাব তাদের ফেসবুক পেজে জানায়, হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছেড়ে যায় ফ্লাইটটি। এরপর ৬টা ৫০ মিনিটের দিকে তা ইয়াঙ্গুনে অবতরণ করার সময় রানওয়ের বাম দিকে ছিটকে পড়ে।

বৈরী আবহাওয়ার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানায় তারা। আহতদের দ্রুত হাসপাতালে নেয়া হয় বলেও অ্যাভিয়েশন হাব জানায়।

বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ জানিয়েছেন, ঢাকা থেকে ইয়াঙ্গুনগামী ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজের ফ্লাইট বিজি ০৬০ বিকাল ৩টা ৪৫ মিনিটে ঢাকা ত্যাগ করে। ফ্লাইটটি বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টা ২২ মিনিটে ইয়াঙ্গুনে অবতরণের সময় বৈরি আবহাওয়ার কবলে পড়ে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে।

মিয়ানমারে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মঞ্জুরুল খান চৌধুরী জানান, ইফতারের আগে এই দুর্ঘটনা ঘটে। অনেকে সামান্য আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত কেউ নেই। দূতাবাসের কর্মকর্তারা ইতোমধ্যে হাসপাতালে পৌঁছে গেছে। আহতদের খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজটি ৭৪ আরোহী বহনে সক্ষম। মিয়ানমারে বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, আহতদের ইয়াংগুনের নর্থ ওকলাপা হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here