চেন্নাই সুপার কিংসকে হারিয়ে দ্বাদশ আইপিএলের ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। মঙ্গলবার আইপিএলের প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাইকে ৬ উইকেটে হারায় রোহিত শর্মার মুম্বাই।

নিজেদের মাঠে আগে ব্যাট করে ৪ উইকেটে ১৩১ রান করেছিল চেন্নাই। জবাবে ৯ বল হাতে রেখেই মাত্র ৪ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় মুম্বাই।

আইপিএলে এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো ফাইনালে উঠল দলটি। ২০১৩, ২০১৫ ও ২০১৭ সালে আইপিএলের শিরোপা জয় করেছিল দলটি।

পাওয়ার প্লেতেই বড় ধাক্কা খায় চেন্নাই। ৬ ওভারে ৩২ রান তুলতেই তারা হারায় ৩ উইকেট। মুরালি বিজয়ের সঙ্গে আম্বাতি রাইডুর জুটিতে যখন ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছিল স্বাগতিকরা, তখন আবারও রাহুলের আঘাত। ২৬ রান করে এই লেগ স্পিনারের শিকার হন বিজয়।

এরপর রাইডু ও মহেন্দ্র সিং ধোনি ক্রিজে ছিলেন শেষ পর্যন্ত। কিন্তু রান খুব বেশি তুলতে পারেননি। ৬৬ রানের জুটিতে অবিচ্ছিন্ন ছিলেন দুইজন। আম্বাতি ৩৭ বলে ৪২ রানে অপরাজিত ছিলেন। ২৯ রানে ৩ ছয়ে ৩৭ রানে টিকে ছিলেন ধোনি।

রাহুল ৪ ওভারে মাত্র ১৪ রান দিয়ে দুই উইকেট নেন।

লক্ষ্যে নেমে ২১ রানে দুটি উইকেট হারায় মুম্বাই। আর পেছনে তাকাতে হয়নি মুম্বাইকে। ইশান কিষাণের সঙ্গে সূর্যকুমারের ৮০ রানের অপরাজিত জুটিতে সহজ জয়ের পথে ছুটতে থাকে তারা। অবশ্য এই জুটি শেষ পর্যন্ত যেতে পারেনি। ২৮ রানে বিদায় নেন কিষাণ।

দলের বাকি ৩১ রান করেন সূর্যকুমার ‍ও হার্দিক পান্ডিয়া। তাদের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ৯ বল আগে জিতে যায় মুম্বাই। ৫৪ বলে ১০ চারে ৭১ রানে অপরাজিত থেকে ম্যাচসেরা হন সূর্যকুমার। ১৩ রানে খেলছিলেন পান্ডিয়া।

এই জয়ের পর আগামী ১২ মে চতুর্থ শিরোপার লক্ষ্যে খেলবে মুম্বাই। অবশ্য চেন্নাইয়ের শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখার আশা এখনও শেষ হয়নি। আগামী শুক্রবার তারা দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলবে এলিমিনেটর বিজয়ীর সঙ্গে। এলিমিনেটর ম্যাচে বুধবার মুখোমুখি হবে দিল্লি ক্যাপিটালস ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here