দইবড়ার স্বাদ একেবারেই আলাদা। যারা খয়েছেন তা বুঝতে পারবেন, আর যারা খান নাই এখনও তারা আফসোস করতেই থাকবেন। কেনা দই বড়ার মতই ঘরে বসেই তৈরি করা যায় একই স্বাদের দই বড়া।

চলুন, দেখে নেয়া যাক কিভাবে তৈরী করতে হয় এই দইবড়া।

উপকরণ

উপকরণের নাম   পরিমাণ

মাষকলাই ডাল    ১/২ কাপ

জিরা ২ চা চামচ

ধনে  ২ চা চামচ

গোল মরিচ ১/২ চা চামচ

শুকনো মরিচ ৪টি

লবণ ১ টেবিল চামচ

তেল  ১ কাপ

গুড় বা চিনি ২ টেবিল চামচ

টক দই    ২ কাপ

রান্নার পদ্ধতি

১।   প্রথমে ডাল ভালো করে ধুয়ে নিয়ে ৪ ঘণ্টা পানি দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন।

২।   জিরা, ধনে, গোল মরিচ ও শুকনো মরিচ আলাদা টেলে একসঙ্গে গুঁড়া করে রাখুন।

৩।  ডালের পানি ফেলে দিয়ে শিল-পাটায় মিহি করে বেটে নিন। এবার সামান্য পানি দিয়ে ডাল ভালো করে ফেটে নিন। একটা গামলায় ৬ কাপ পানির সাথে ২ চা চামচ লবণ মিশিয়ে রাখুন।

৪।   কড়াইয়ে তেল গরম করে অল্প ডাল নিয়ে চ্যাপ্টা আকারের বড়া বানিয়ে তেলে ভাজুন।

৫।  ভাজা হলে তেল থেকে তুলে লবণ পানিতে ছাড়ুন। এভাবে সব ডালের বড়া ভেজে তুলুন। বড়া ভাজার সময় না ফুলে উঠলে সামান্য পানি দিয়ে ডাল আবার ফেটে নিন।

৬।  দই আলাদা করে ফেটে নিন। বেশি ঘন মনে হলে সামান্য পানি মেশাতে পারেন। চিনি বা গুড়, লবণ ও দই এক সঙ্গে মেশান। এবার আগে থেকে গুঁড়া করে করে রাখা ভাজা মসলা ২ চা চামচ মেশান।

৭।   বড়ার পানি ছেঁকে নিয়ে একটা কাঁচের বাটিতে বড়াগুলো রাখুন।

৮।  বড়ার ওপরে দই এর মিশ্রণ ঢেলে দিন। ওপরে গুঁড়া মশলা ছিটিয়ে দিন। পুদিনা পাতা ও ধনে পাতা কুচিও দিতে পারেন।

৯।  বড়া ২ ঘণ্টা দই এ ভিজতে দিন।

আমাদের দই বড়া কিন্তু প্রস্তুত হয়ে গেছে। অনেকে দইবড়াকে ঠাণ্ডা করে খেতে পছন্দ করেন। সেক্ষেত্রে, ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা হয়ে এলে পরিবেশন করুন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here