আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আগামী ১৫ মে দেশে ফিরছেন। ওইদিন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি ০৮৫ নম্বর ফ্লাইটে করে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবেন তিনি।

আজ রোববার সকালের দিকে সেতু বিভাগের জনসংযোগ কর্মকর্তা শেখ ওয়ালিদ ফয়েজ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আগামী ১৫ মে সন্ধ্যা ৬টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ফ্লাইটে ওবায়দুল কাদের দেশে ফিরবেন বলে আশা করা যাচ্ছে। সবাই তার জন্য দোয়া করবেন।

এর আগে গতকাল শনিবার সিঙ্গাপুরে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে অবস্থানরত ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম হাজারী বলেছেন, ‘স্যার (ওবায়দুল কাদের) এখন সুস্থ। বর্তমানে তিনি স্বাভাবিক হাঁটাচলা করতে পারছেন। তিনি ব্যায়ামও করছেন। ডাক্তারের পরামর্শেই তিনি এখন দেশে ফিরবেন।’

একই কথা বলেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের উপ-প্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. আবু নাছের। তিনি জানান, মঙ্গলবার অথবা বুধবার ওবায়দুল কাদেরের আসার কথা রয়েছে। তিনি এখন সম্পূর্ণ সুস্থ।

এদিকে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, আগামী ২৫ মে দ্বিতীয় মেঘনা ও গোমতী সেতু উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওবায়দুল কাদের ওই অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন- এমনটাই আশা করা হচ্ছে। এ ছাড়া মন্ত্রণালয়ে ওবায়দুল কাদেরের কক্ষও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৩ মার্চ হঠাৎ অসুস্থ হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি হন ওবায়দুল কাদের। তার হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়ে বিএসএমএমইউ-এর চিকিৎসকরা তার জীবন বাঁচান। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতের হৃদরোগ সার্জন দেবী শেঠির পরামর্শে ৪ মার্চ এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে গত ২০ মার্চ ওবায়দুল কাদেরের বাইপাস সার্জারি সম্পন্ন হয়।

এক মাস চিকিৎসা শেষে গত ৫ এপ্রিল সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল থেকে ওবায়দুল কাদেরকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। বর্তমানে তিনি সিঙ্গাপুরে হাসপাতালের কাছেই ভাড়া বাসায় অবস্থান করছেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here