পাক-ইরান অভিন্ন সীমান্তে বেড়া দেয়ার কাজ শুরু করা হয়েছে। ৯৫০ কিলোমিটার সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদার করার অংশ হিসেবে এ বেড়া দেয়ার কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন পাকিস্তান সীমান্তরক্ষী দলের কমান্ডার মোয়াজ্জাম জান আনসারি।

পাক সংসদের উচ্চকক্ষকে এ তথ্য জানিয়েছেন তিনি। তিনি বলেন, পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশ এবং ইরানের সিস্তান-বালুচিস্তান প্রদেশ সংলগ্ন অভিন্ন সীমান্তে বেড়া দেয়ার প্রকল্প তিন থেকে চার বছরের মধ্যে শেষ হবে।

পাশাপাশি তিনি আরও জানান, ইরান সীমান্ত সংলগ্ন বেলুচিস্তানে পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী সম্প্রতি সামরিক অভিযান চালিয়েছে। এ অভিযানে অন্তত ১৫ সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে বলেও জানান তিনি।

পাকিস্তানভিত্তিক সন্ত্রাসীদের ইরানি সীমান্তরক্ষীদের ওপর সাম্প্রতিক হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে অভিন্ন সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদারের পদক্ষেপ নিয়েছে পাক-ইরান নিরাপত্তা বাহিনী।

গত মাসে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি বলেছিলেন, ইরান সীমান্তে স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে ছয়টি পদক্ষেপ নিয়েছে পাকিস্তান।   ‘শান্তির সীমান্ত’ নামের প্রকল্পের আওতায় এ সব পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানান তিনি।

এ ছাড়া, অভিন্ন সীমান্তের যে সব পথে সন্ত্রাসীগোষ্ঠীরা অহরহ আনাগোনা করে সে স্থানে বেড়া দেয়ার একটি প্রকল্পও নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান গত এপ্রিল মাসে তেহরান সফর করেন। সে সময় ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছিলেন দেশ দুইটি ‘যৌথ র‍্যাপিড রিঅ্যাকশন ফোর্স’ গঠনে সম্মত হয়েছে। অভিন্ন সীমান্ত সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা করার লক্ষ্য গঠন করা হয়েছে এটি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here