ক্লে-কোর্টে দুই বোন সেরেনা উইলিয়ামস ও ভেনোস উইলিয়ামের মধ্যেকার লড়াই শেষবার দেখা হয়েছিল দু’দশকের বেশি আগে। কিন্তু সেই স্মৃতি এখন আর কারো মনেই তবে। ঠিক সে সময়ই আবারও এ কোর্টে নামার সুযোগ পেয়েছিলেন তারা। ইতালিয়ান ওপেনের দ্বিতীয় রাউন্ডে লড়ায়ের কথা যুক্তরাষ্ট্রের উইলিয়ামস পরিবারের দুই মেয়ের। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর হচ্ছে না। এরইমধ্যে হাঁটুর চোটে পড়ে এ টুর্নামেন্ট থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন সেরেনা।

রোমের টুর্নামেন্টে চার বারের চ্যাম্পিয়ন সেরিনার প্রথম রাউন্ডে সুইডিশ কোয়ালিফায়ার ২৪ বছরের রেবেকা প্যাটারসনের বিরুদ্ধে হাসতে হাসতে জিতেন ৬-৪, ৬-২ গেমে। অন্য ম্যাচে বেলজিয়ামের এলিসে মার্টিনেন্সকে ভেরাস হারান সেট খুইয়ে, কাঠখড় পুড়িয়ে। জিতেন ৭-৫, ৩-৬, ৭-৬ (৭-৪)।

এ বছরের মার্চে শেষবার মিয়ামি ওপেনে খেলেছিলেন সেরেনা। এরপর হাঁটুর চোটে যুক্তরাষ্টের এ টেনিস তারকা নাম তুলে নেন ইন্ডিয়ান ওয়েলস থেকে। শেষ পর্যন্ত দুই মাসের বিরতি দিয়ে মোটামুটি অনুশীলন করেই রোমের কোর্টে ফিরেছিলেন বিশ্বের এগারো নম্বর তারকা। ছুটছিলেনও বেশ। কিন্তু আবারও হাঁটুর সেই পুরনো চোটই তাকে টেনিস কোর্ট থেকে ছিটকে দিল।

ইতালিয়ান ওপেন থেকে ছিটকে পড়ায় দুঃখ পয়েছেন সেরেনা। ব্যাপারটি ভক্তদের জানিয়েছেনও তিনি, ‘আমার বাম হাঁটুতে ব্যাথা বেড়েছে। যে কারণে বাধ্য হয়েই ইতালিয়ান ওপেন থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছি। এটা আমার প্রিয় টুর্নামেন্টের একটি। কিন্তু সেখানে এবার আর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারছি না। এজন্য দুঃখিত আমি। সত্যিই আমি আমার ভক্তদের মিস করব। তবে দ্রুতই আবার চেনা পরিবেশে ফিরতে চেষ্টা করব। আশা করি আগামী বছর ফেঞ্চ ওপেনে সবার সঙ্গে কোর্টে দেখা হবে।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here