স্প্যানিশ গণমাধ্যম মার্কায় আগের দিন একটি সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর বেশ শোরগোল পড়ে গিয়েছে ফুটবল পাড়ায়। সের্জিও আগুয়েরোর একটি উক্তিই এর মূল কারণ। উক্ত উক্তি অনুযায়ী চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালিস্ট দুই দল টটেনহ্যাম ও লিভারপুল থেকে কোন খেলোয়াড় ব্যালন ডি’অর পাওয়া উচিৎ। আর তা হলে এটা পাচ্ছেন না অন্যতম দাবীদার জাতীয় দলের সতীর্থ লিওনেল মেসি। কিন্তু বুধবার সামাজিক মাধ্যমে এক বার্তায় বিষয়টি সরাসরি অস্বীকার করেছেন আগুয়েরো।

‘আমার মনে হয় ব্যালন ডি’অর জিততে হলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে খেলতে হবে।’ মার্কায় এমনটাই নাকি বলেছেন এ আর্জেন্টাইন। তবে বিষয়টি অস্বীকার করে ফেসবুক ও টুইটারে আগুয়েরো লিখেছেন, ‘আমি আমার নিজের বক্তব্য নিয়ে যাচাই নিয়ে কথা বলতে পছন্দ করি না। কিন্তু যখন এমনটি বক্তব্যে আমাকে জড়ান হয় সেটা আমি বলিনি তখন আমাকে কিছু বলতে হয়। আমি এটা বলছি এখন। যতো দিন মেসি খেলবে ততদিন ব্যালন ডি’অরে আমার পছন্দ মেসিই। বিশেষ করে এ মৌসুমে যেমন খেলেছে।’

পরে আরও একটি টুইটে তার আগের বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়েছেন, ‘আমাকে প্রশ্ন করা হয় আমি এ বছরে ব্যালন ডি’অর জিততে পারবো কি না। আমার উত্তর ছিল আমাকে অবশ্যই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে পৌঁছাতে হবে যদি এটা আমি জিততে চাই। এখানে ভুল ব্যাখ্যার কোন জায়গা নেই।’

ব্যক্তিগতভাবে মেসি এবং আগুয়েরো দুই জন খুব ভালো বন্ধু। বয়স ভিত্তিক দল থেকেই তারা খুব ঘনিষ্ঠ। তাই মার্কার সংবাদটি প্রকাশ হওয়ার পর  বেশ বিস্ময় ছড়িয়েছিল। অনেকে মেসি-আগুয়েরোর মধ্যে সম্পর্কের অবনতির চিহ্নও খুঁজছিলেন। রাশিয়া বিশ্বকাপের পর লম্বা সময় পর আর্জেন্টিনা দলে মেসি ফিরলেও এখনও ডাক পাননি আগুয়েরো। এ ঘটনায় এটাকে উল্লেখ করে ফলাও করে প্রচার করছে অনেকে।

ব্যালন ডি’অরে মেসি ও রোনালদোর এক দশকের রাজত্ব ভেঙে গত মৌসুমে জিতে নিয়েছিলেন লুকা মদ্রিচ। তবে চলতি মৌসুমে আবারো এ পুরষ্কার জয়ের বড় দাবীদার মেসি। ইউরোপের সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতাও বটে। এছাড়া এসিস্টেও সবার উপরে। বার্সেলোনাকে একাই টেনে নিয়েছেন। দুর্ভাগ্যবশত চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমি-ফাইনাল থেকে বাদ পড়ে তার দল।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here