মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি আশা করছেন ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সঙ্গে আমেরিকার যুদ্ধ হবে না। ইরান ও আমেরিকার মধ্যে যখন তুমুল উত্তেজনা চলছে এবং মার্কিন সরকার তেহরানের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ পর্যায়ের বলদর্পী নীতি অনুসরণ করছে তখন ট্রাম্প একথা বললেন।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) হোয়াইট হাউজে সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট ইউলি মাওরার সঙ্গে বৈঠকের আগে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন ট্রাম্প। ১৯৮০ সালের ২১ মে’র পর থেকে সুইজারল্যান্ড সরকার ইরানে মার্কিন স্বার্থ দেখাশুনা করে আসছে।

যুদ্ধের বিষয়ে ট্রাম্পের এমন মন্তব্যের আগে খবর বের হয়েছে যে, মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওসহ যেসব যুদ্ধবাজ কর্মকর্তারা ট্রাম্প প্রশাসনকে সামরিক সংঘাতের দিকে ঠেলে দিচ্ছেন তাদের ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছেন প্রেসিডেন্ট নিজেই।

গত সোমবার নিউ ইয়র্ক টাইমস খবর দিয়েছে, বোল্টনের নির্দেশে মার্কিন ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান ইরান-বিরোধী যুদ্ধের একটি পরিকল্পনা পেশ করেছেন যার আওতায় মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকা আরো এক লাখ ২০ হাজার সেনা পাঠাবে। এ খবরকে ট্রাম্প ভুয়া বলে উড়িয়ে দেন তবে কংগ্রেস বিষয়টি গুরুত্বসহকারে নিয়েছে। কংগ্রেসের দু দলের আইন প্রণেতারাই যুদ্ধ-পরিকল্পনার বিরোধিতা করেছেন। এছাড়া, মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে বুঝতে হবে যে, তিনি একতরফাভাবে কোনো যুদ্ধ ঘোষণা করতে পারেন না; যুদ্ধ ঘোষণার একমাত্র এখতিয়ার কংগ্রেসের।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here