ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। শুক্রবার (১৭ মে) সকাল সাড়ে ৬টায় ঢাকা থেকে সকল রুটের বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়।

রাজধানীর গাবতলী ও আশপাশের এলাকার কাউন্টার থেকে সকাল ৬টায় টিকিট বিক্রি শুরু হয়। এদিকে ঈদের আগাম টিকিট নিতে বাস কাউন্টারে উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। ভোররাত থেকেই অনেকে লাইনে দাঁড়িয়ে ৩০ মের টিকিটের জন্য অপেক্ষা করছেন।

প্রিয়জনদের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে নগরবাসী সেহরির পরেই বাস কাউন্টারগুলোতে ভিড় জমিয়েছেন। রাজধানীর মহাখালী, কল্যাণপুর, গাবতলী, আসাদগেইট ও শ্যামলীর বাস কাউন্টারগুলো ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

জয়পুরহাটের ৩ জুনের টিকিট প্রত্যাশী সোহেল রানা বলেন, সেহরির পর এসে লাইনে দাঁড়িয়েছি। এখন পর্যন্ত সিরিয়াল পাইনি। হয়তো অল্প সময়ের মধ্যে পেয়ে যাব। কাঙ্ক্ষিত দিনের টিকিট পেলে খুশি হবো।

গাবতলীতে হানিফ এন্টারপ্রাইজের কাউন্টারে সবচেয়ে বেশি ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। কাঙ্ক্ষিত রুটের বাস কাউন্টারে টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন। শফিকুল ইসলাম নামে এক যাত্রী জানান, ৩০ মে ও ৩ জুনের দু’টি করে মোট ৪টি টিকিট কিনেছেন তিনি। তবে কাঙ্ক্ষিত দিনের টিকিট পেলেও কাঙ্ক্ষিত সময় মেলেনি।

জানা গেছে, এবার শ্যামলী পরিবহনের ৪টি কাউন্টার থেকে আসন্ন ঈদুল ফিতরের বাসের টিকিট দেয়া হচ্ছে। কল্যাণপুর কাউন্টার থেকে গাইবান্ধা, রংপুর, কুষ্টিয়া ও মেহেরপুর রুটের টিকিট; শ্যামলীর বাস কাউন্টার থেকে ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, বালিয়াডাঙ্গি ও রানী শংকৈলের টিকিট; আসাদগেট থেকে ফুলবাড়ী-দিনাজপুর, কুড়িগ্রাম-ভুরুঙ্গামারীর টিকিট এবং টেকনিক্যাল মোহনা পাম্পের কাউন্টার থেকে পাবনার টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে।

পরিবহন সংশ্লিষ্টরা জানান, প্রতি বছরের মতো গাবতলী, টেকনিক্যাল ও কল্যাণপুর থেকে উত্তর ও দক্ষিণ বঙ্গগামী বাসের আগাম টিকিট বিক্রি করা হয়। এবারই একই ধরনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে মহাখালী ও সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে আগের মতো তাৎক্ষণিক টিকিট বিক্রি করা হবে।

তারা আরও জানান, এবার ঈদে দীর্ঘ ছুটি থাকায় একই সময়ে বাসের চাপ কম পড়বে। ৩০ মে থেকে মানুষ বাড়ি যেতে শুরু করবে বলে আশা করছেন তারা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here