ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধে যাওয়ার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে জোর তদবিরকারী জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনকে নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক ছবি প্রকাশ করেছে মার্কিন ব্যাঙ্গাত্মক দৈনিক দ্যা ওনিয়ন।

দৈনিকটিতে রক্তাক্ত বোল্টনের ছবি প্রকাশ করে বিদ্রুপাত্মক সুরে লেখা হয়েছে, বোল্টন এক হাতে বুক চেপে ধরে নিজেকে কোনোমতে কংগ্রেস ভবনে টেনে নিয়ে গিয়ে দাবি করছেন, ইরান তাকে গুলি করেছে।

মার্কিন দৈনিকটি ছবির বর্ণনায় আরো লিখেছে, বোল্টন তার ঘনিষ্ঠজনদের বলেন, তিনি যখন নিজের কাজে ব্যস্ত ছিলেন তখন ইরান একটি দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে তাকে আঘাত হেনেছে। মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা আরো বলেন, এরপর আমি অট্টহাসিতে ফেটে পড়া একদল মানুষকে একথা বলতে শুনেছি, “একটি পাশবিক হামলা শুরু করার আগে এই লোকটাকে কেউ থামাও।”

মার্কিন দৈনিকে বোল্টন সম্পর্কে এ ধরনের ছবি ও ব্যাঙ্গাত্মক কথাবার্তা প্রকাশ থেকে বোঝা যায়, ইরানের ব্যাপারে বোল্টনের মতো যুদ্ধবাজ নেতাদের বিদ্বেষী নীতিকে খোদ আমেরিকার জনগণই পছন্দ করছে না। বর্তমানে ইরানের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্কে যে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে সেজন্য অনেকেই ব্যক্তি বোল্টনকে দায়ী করছেন। তারা মনে করছেন, বোল্টনের এই উগ্র নীতির জন্য হোয়াইট হাউজকে চড়া মূল্য দিতে হতে পারে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here