ঈদযাত্রায় অ্যাপসের মাধ্যমে রেলের টিকিট বিক্রিতে কাঙ্ক্ষিত সাফল্য পাওয়া যায়নি। এই ব্যর্থতার দায় নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

তিনি বলেন, যাবতীয় ব্যবস্থা থাকা সত্ত্বেও কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে না পারা দুঃখজনক। এর দায় রেলপথ মন্ত্রণালয় এড়াতে পারে না।

বুধবার (২২ মে) রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে টিকিট বিক্রি কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

রেলপথমন্ত্রী বলেন, অ্যাপসে সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সিস্টেমের (সিএনএস) সঙ্গে ২০০৭ সাল থেকে আমাদের চুক্তি। সিএনএসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে সিএনএসের ব্যর্থতার দায় আমরা এড়াতে পারি না।

মন্ত্রী জানান, সিএনএসের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে আর বাড়ানো হবে না।

২০০৭ সাল থেকে বাংলাদেশ রেলওয়ের সঙ্গে কাজ করছে কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সিস্টেম লিমিটেড বাংলাদেশ। কাউন্টারে রেলওয়ের টিকিট বিক্রির সফটওয়্যার ব্যবস্থাপনা ও অনলাইনে টিকিট বিক্রির ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠানটি ‘রেলসেবা’ নামে টিকিট বিক্রির অ্যাপের ব্যবস্থাপনার দায়িত্বেও রয়েছে।

নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, এবার কার্যক্রমে ভিন্নতা রয়েছে। অ্যাপসে ৫০ শতাংশ টিকিট দেয়া হয়েছে। অনেকে অভিযোগ করেছেন, যে সেবা পাওয়ার কথা, সেই কাঙ্ক্ষিত সেবা পাচ্ছেন না তারা। এটি দুঃখজনক। যাতে ভবিষ্যতে বিড়ম্বনা না হয়, ঈদের পর আমরা সে ব্যবস্থাই নেব।

গত ২৮ এপ্রিল ‘রেলসেবা’ অ্যাপ উদ্বোধন করেন রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। কিন্তু ‘সার্ভারে ত্রুটি’, ‘বিক্রি শুরুর আগেই টিকিট শেষ’, ‘টিকিট না দিয়েই টাকা কেটে রাখা’- প্রতিদিন এ ধরনের অসংখ্য অভিযোগ রেলপথ মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ রেলওয়েতে জমা পড়ছে। এসব অভিযোগের কোনো সুরাহা না করেই আজ বুধবার (২২ মে) থেকে শুরু হয়েছে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here