দ্বিতীয় মেয়াদে নরেন্দ্র মোদিকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে বিশাল জয় লাভের পর ভারতীয় জনতা পার্টির নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট (এনডিএ) নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা শনিবার মোদিকে এনডিএ’র নেতা হিসেবে নির্বাচিত করার পরপরই এ নিয়োগ দেয়া হয়।

নয়াদিল্লিতে সংসদ সদস্যদের সঙ্গে এক বৈঠকে মোদিকে সর্বসম্মতিক্রমে এনডিএ’র নেতা হিসেবে ঘোষণা করেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ।

শনিবার মোদি ও তার জোটের কয়েকজন নেতা রাষ্ট্রপতি ভবনে কোবিন্দের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। মোদির সঙ্গে সাক্ষাতের কথা টুইটারে জানিয়েছেন রামনাথ কোবিন্দ।

রাষ্ট্রপতির সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বলা হয়, বিজেপির সংসদীয় দলের নেতা হিসেবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বেছে নেয়া হয়েছে সেই চিঠি রাষ্ট্রপতির কাছে জমা পড়েছে। এছাড়া এনডিএ-র সমর্থনের চিঠিও পেয়েছেন রাষ্ট্রপতি।

রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে বেরিয়ে গণমাধ্যমকে মোদি জানান, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে সরকার গঠনের কথা জানিয়েছেন তিনি। তাকে রাষ্ট্রপতি বলেছেন, এরপর যা যা করার আছে সেগুলো ঠিক করে তাকে জানিয়ে দিতে। প্রথা অনুযায়ী, মন্ত্রিসভার সদস্যদের নাম ঠিক করে জানিয়ে দিতে হবে রাষ্ট্রপতিকে।

এর আগে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ দেখা করে রাষ্ট্রপতিকে জানান, দলের সাংসদরা নরেন্দ্র মোদিকেই প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান। বিষয়টি লিখিত আকারেও জানিয়ে দেন অমিত।

গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, আগামী বৃহস্পতিবার মোদিকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ পড়াতে পারেন রাষ্ট্রপতি।

নির্বাচন কমিশন ঘোষণা করেছে, ভারতের সংসদে নিম্নকক্ষ লোকসভার ৫৪২ আসনের মধ্যে ৩০৩ টি জিতেছে বিজেপি। ফলে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে টানা দ্বিতীয়বারের মতো ১৩০ কোটি জনসংখ্যার দেশটির নেতৃত্ব দিতে চলেছেন মোদি।

বিজেপির অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী রাহুল গান্ধী নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস ৫২টি আসন জিতেছে। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি নেতৃত্বাধীন অল ইন্ডিয়া তৃণমূল কংগ্রেস ২২টি আসন জিতেছে।

গত ১১ এপ্রিল থেকে ১৯ মে পর্যন্ত মোট সাতটি ধাপে দীর্ঘ ছয় সপ্তাহব্যাপী ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সারাদেশে মোট ভোটার ছিল প্রায় ৯০ কোটি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here