গত মাসে প্যারিসে এক নারীকে ধর্ষণ করেছেন নেইমার। ঘটনার শিকার হওয়া নারী নিজেই দিন দু’য়েক আগেই ব্রাজিলের পুলিশের কাছে এ অভিযোগ করেছেন। কিন্তু ব্যাপারটি অস্বীকার করেছেন পিএসজির তারকা এ ফরোয়ার্ড। এক ভিডিওতে অভিযোগকারী নারীর সঙ্গে তার সম্পর্কের বিষয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন তিনি। ব্রাজিলিয়ান তারকা দাবি, যা হয়েছিল তা ওই নারীর সম্মতিতেই হয়েছিল, কিন্তু পরে মিথ্যে অভিযোগ তুলে টাকা আদায়ের চেষ্টা করা হয়েছে।

ওই নারী পুলিশকে জানিয়েছেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে নেইমারের সঙ্গে কথা হয়। এরপর ফ্রান্সে তাদের সরাসরি দেখা হয়। গাল্লো নামে পিএসজি তারকার এক প্রতিনিধি তাকে প্যারিসে আসার টিকিট কিনে দেন এবং হোটেলে থাকার ব্যবস্থাও করেন। অভিযোগকারী নারীর ভাষ্য, নেইমার ‘পুরো মাতাল’ হয়ে হোটেলে আসেন এবং তারা ‘একজন আরেকজনকে স্পর্শ করলেও একটি নির্দিষ্ট মুহূর্তে নেইমার আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠেন এবং তাঁর ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন’।

এ বিষয়ে শনিবার ইন্সটাগ্রামে একটি ভিডিওতে নেইমার হোয়াটঅ্যাপে ওই নারীর পাঠানো বার্তা ও কিছু ছবি প্রকাশ করেন। সেখানে বলা হয়েছে, ‘আমার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়েছে। এটা খুব কঠিন একটা শব্দ। খুব কঠিন একটা বিষয় কিন্তু তাই এখন ঘটছে। আমি খুব অবাক হয়েছি। খুব খারাপ একটা ব্যাপার। শুনতেও খারাপ লাগছে কারণ যারা আমাকে চেনে, আমার ব্যবহার জানে তারা জানে যে এমন কিছু আমি কখনোই করব না। যা হয়েছিল ঠিক তার বিপরীতটা তারা (অভিযোগকারীরা) বলছে।’

ভিডিও বার্তায় নেইমার আরও বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমি খুবই মর্মাহত। তবে এখন আমি ওই নারীর সঙ্গে আমার যেসব আলাপ হয়েছিল তা প্রকাশ করব। … বিষয়টি যে আসলেই গুরুত্বপূর্ণ কিছু নয় তা বোঝাতে প্রমাণগুলো প্রকাশ করা জরুরি।’

ওই নারীর সম্মতিতেই যৌনমিলন হয়েছিল। এমনটাই দাবী নেইমারের, ‘আমি আপনাদের সব বার্তা দেখাব, ওই দিন ও পরের দিন যা কিছু হয়েছিল। কারণ ওইদিন যা হয়েছিল তা একজন নারী ও পুরুষের মধ্যে চার দেয়ালের মধ্যে হয়; যা যে কোনো যুগলের মধ্যে হয়।’

এরআগে নেইমারের বাবা ও তার এজেন্ট শনিবার ব্রাজিলিয়ান একটি টেলিভিশনে বলেন, তার ছেলের সঙ্গে ওই নারীর যৌনসম্পর্ক ছিল। কিন্তু তাদের ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর ওই নারী তার আইনজীবীদের দিয়ে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করে।

আপাতত কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে অনুশীলনে ব্যস্ত নেইমার। তার মধ্যেই তারকা এ ফরোয়ার্ডের বিপক্ষে উঠে ধর্ষণের অভিযোগ। কিন্তু ব্যাপারটিতে নিজের কোন দোষ নেই বলে দাবী করেছেন ব্রাজিলের এ ফুটবলার। এখন দেখার বিষয় পুলিশ কি ব্যবস্থা নেয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here