ব্রেক্সিট বিতর্কের জেরে শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে কনজারভেটিভ পার্টির প্রধানের পদ ছেড়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। দলের নতুন নেতা মনোনীত না হওয়া পর্যন্ত মে তত্ত্বাবধায়ক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন থেরেসা মে’র উত্তরসূরি হিসেবে এগিয়ে আছেন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ব্রেক্সিটের দৃঢ় সমর্থক বরিস জনসন।

সপ্তাহ দুয়েক আগে থেরেসা মে ঘোষণা দিয়েছিলেন যে তিনি ৭ জুন যুক্তরাজ্যের কনজারভেটিভ পার্টির নেতৃত্ব ছেড়ে দেবেন।
টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক বিবৃতিতে মে ধরা গলায় বলেন, তিনি এমন এক দায়িত্ব ছেড়ে যাচ্ছেন যা পালন করা ছিল তার জীবনে এক সম্মানের ব্যাপার।

নির্ধারিত সময়ে ব্রিটেনকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বের করে আনতে না পারার ব্যর্থতার জন্য পদত্যাগ করতে নিজের দল থেকে অব্যাহত চাপে ছিলেন থেরেসা মে। বর্তমান সময়সীমা অনুযায়ী ৩১ অক্টোবর ব্রিটেনের ইইউ ত্যাগ করার কথা রয়েছে।
২০১৬ সালের জুলাইতে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হন থেরেসা মে। তার মেয়াদের বেশিরভাগ সময় ব্যয় হয় এখন পর্যন্ত অসফল ব্রেক্সিট চুক্তির পেছনে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here