পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা বড় হার দিয়ে বিশ্বকাপ শুরুর পর ঘুরে দাঁড়িয়েছে। সরফরাজ আহমেদের দল তো রীতিমতো উড়ছে! স্বাগতিক ও ওয়ানডের এক নম্বর দল ইংল্যান্ডকেই তো হারিয়ে দিয়েছে তারা।

অন্যদিকে, লঙ্কানরাও ‘বড় দলের’ মতো খেলা উপহার দিয়েছে আফগানিস্তানের বিপক্ষে। ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে পাওয়া ১৮৬ রানের পুঁজি নিয়ে প্রাণপণ লড়াই করে দারুণ এক জয় তুলে নেয় দিমুথ কারুনারত্নের দল।

এশিয়ার দুই ক্রিকেট পরাশক্তি এবারে মুখোমুখি হচ্ছে একে অপরের। সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের লড়াইয়ের মঞ্চ ব্রিস্টল কাউন্টি গ্রাউন্ড। ম্যাচ শুরু শুক্রবার (৭ জুন) বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে তিনটায়।

ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে উপস্থিত হয়েছিলেন ব্যাটিং কোচ গ্রান্ট ফ্লাওয়ার। শ্রীলঙ্কা কঠিন চ্যালেঞ্জই জানাবে, এমনটাই প্রত্যাশা করছেন তিনি। আলাদা করে বলেছেন প্রতিপক্ষের বোলারদের কথা। কেননা, ছোট লক্ষ্যের পেছনে ছোটা আফগানদের ধসিয়ে দিতে বিশাল ভূমিকা রেখেছিলেন নুয়ান প্রদীপ ও লাসিথ মালিঙ্গা। প্রদীপ পেয়েছিলেন ৪ উইকেট। মালিঙ্গার ঝুলিতে গিয়েছিল ৩টি। ফ্লাওয়ার জানান, ‘তাদের (শ্রীলঙ্কার) প্রতি সবসময়ই শ্রদ্ধাশীল থাকতে হবে। তাদের দারুণ কিছু বোলার আছে। আশা করছি ভালো একটা ম্যাচ হবে।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ১০৫ রানে গুটিয়ে যাওয়ার পর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চলতি আসরের এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৮ উইকেটে ৩৪৮ রান। পাকিস্তানের পক্ষেই সম্ভব এমনটা। নিজেদের দিনে যে কাউকে চমকে দিতে তাদের জুড়ি নেই। এই বাস্তবতা মেনে নিয়ে নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে চান লঙ্কান দলপতি কারুনারত্নে, ‘হ্যাঁ, পাকিস্তান আনপ্রেডিক্টেবল। কিন্তু আমি মনে করি, আত্মবিশ্বাস নিয়েই এ ম্যাচে আমরা মাঠে নামব। আমরা আমাদের সেরাটাই দেব। তাই বলে অতি-আত্মবিশ্বাসীও নই আমরা। দেখা যাক, কাল (শুক্রবার) কী হয়।’

পরিসংখ্যান:

মোট ম্যাচ: ১৫৩, পাকিস্তান জয়ী: ৯০, শ্রীলঙ্কা জয়ী: ৫৮, টাই: ১, পরিত্যক্ত: ৪।

বিশ্বকাপ পরিসংখ্যান:

মোট ম্যাচ: ৭, পাকিস্তান জয়ী: ৭, শ্রীলঙ্কা জয়ী: ০।

কন্ডিশন ও উইকেট:

আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, ব্রিস্টলে শুক্রবার বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। সারাদিন ধরেই হতে পারে অবিরাম বর্ষণ। তাই নির্ধারিত সময়ে ম্যাচ মাঠে গড়াবে কী-না বা গড়ালেও পুরো ৫০ ওভার খেলা হওয়া নিয়ে শঙ্কা থাকছেই। উইকেট অবশ্য ব্যাটিং-স্বর্গ। বোলারদের ভুগতে হতে পারে।

সম্ভাব্য একাদশ:

পাকিস্তানের অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে মাঠে নামার সম্ভাবনাই বেশি। অন্যদিকে, যদি বৃষ্টির বাধা কাটিয়ে সূচি অনুসারে খেলা শুরু হয়, তবে পেসার সুরঙ্গা লাকমলের পরিবর্তে খেলতে পারেন স্পিন অলরাউন্ডার জীবন মেন্ডিস।

পাকিস্তান:

ইমাম উল হক, ফখর জামান, বাবর আজম, শোয়েব মালিক, মোহাম্মদ হাফিজ, সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক), আসিফ আলী, শাদাব খান, মোহাম্মদ আমির, ওয়াহাব রিয়াজ, হাসান আলী।

শ্রীলঙ্কা:

দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), লাহিরু থিরিমান্নে, কুশল পেরেরা, কুশল মেন্ডিস, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, থিসারা পেরেরা, জীবন মেন্ডিস/সুরঙ্গা লাকমল, নুয়ান প্রদীপ ও লাসিথ মালিঙ্গা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here