এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ গিয়েছিল সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্নের ফানুস উড়িয়ে। সাম্প্রতিক পারফর্ম, র‍্যাংকিং, শক্তিমত্তা বিচারে যা কঠিন হলেও অসম্ভব ছিলনা। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে জয়ের পর আশার বেলুনে হাওয়া বেড়েছিল আরও, কিন্তু পরের দুই ম্যাচ হারেই গেলো গেলো রব পড়েছে চারদিকে। দলের অফস্পিন অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ অবশ্য সেটি মানতে নারাজ, তারমতে এখনো টুর্নামেন্টে টিকে থাকার ভালো সুযোগই রয়েছে টাইগারদের।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুর্দান্ত জয়ের পরই ভক্ত সমর্থকদের আশার পালে হাওয়া লেগেছে দারুণভাবে। সেমিফাইনালের স্বপ্ন গিয়ে ঠেকেছে শিরোপা জয়ে। হয়ত উচ্চাকাঙ্ক্ষা তবুও স্বপ্ন দেখতে দোষ কি তাতে? কিন্তু পরের দুই ম্যাচেই হেরে ভক্তরা বদলে ফেলেছে সুর, চারদিকে শুরু হয়েছে হতাশা।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে লড়াই করে হারলেও, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসের পরই যেন হার মেনে নিয়েছে টাইগার শিবির। শরীরী ভাষায় অমন অসহায় আত্মসমর্পণ দৃষ্টিকটু লেগেছে অনেকেরই। এক সাকিব আল হাসান ছাড়া চেষ্টার তাড়নাও দেখা যায়নি কারও মধ্যে।

দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য অফস্পিনার মেহেদী মিরাজ বলছেন সামনের তিন-চারটি ম্যাচই আবার বদলে দিতে পারে পরিস্থিতি। সেক্ষেত্রে মঙ্গলবার (১১ জুন) ব্রিস্টলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটি হতে পারে টার্নিং পয়েন্ট।

সামনের ম্যাচগুলোতে কামব্যাক করে টুর্নামেন্টে টিকে থাকা প্রসঙ্গে মিরাজ বলেন, ‘এটা আমাদের খুব বেশি দূরে ঠেলে দিয়েছে তা নয়। যদিও আমরা টানা দুই ম্যাচ হেরেছি। সামনে আরও ৬ টি ম্যাচ বাকি, পরের তিন-চারটা ম্যাচে ভালো করলে আমরা টুর্নামেন্টে টিকে থাকবো।’

বিশ্বকাপের আগে যেকটি ম্যাচ জয়ের ছক বাংলাদেশ আগে থেকেই করে রেখেছে তার একটি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ। টানা দুই হারের পর সেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচের সামনে দাঁড়িয়ে মাশরাফি বাহিনী, ফলে ম্যাচটি হয়ে পড়েছে মহাগুরুত্বপূর্ণ। র‍্যাংকিং, সাম্প্রতিক ফর্ম বিবেচনায় নিলে বর্তমান শ্রীলঙ্কা থেকে ঢের এগিয়ে বাংলাদেশ। ফলে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য মোক্ষম সুযোগের সামনেই সাকিব-মাশরাফিরা।

ম্যাচের গুরুত্ব বর্ণনায় তরুণ এই অলরাউন্ডার জানান নিজেদের সেরাটা দেওয়া নিশ্চিত করতে চান পরের ম্যাচে। দৃষ্টি এখন সামনের দিকে পেছনে নয়, ‘শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটি আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের শক্তিশালীভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। নিজেদের সেরাটা দেওয়া নিশ্চিত করতে হবে। আমরা নিজেদের মধ্যে কথা-বার্তা বলে কেবল সামনের কথাই ভাবছি। যে তিনটি ম্যাচ খেলেছে সেগুলো এখন অতীত।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here