স্মার্ট ফোনের এই যুগে পুরো পৃথিবীটা যেন হাতের মুঠোয়। ইচ্ছে হলেই দুজন মানুষ কথা বলতে পারে চ্যাটিং এর মাধ্যমে। আর একারণে সম্পর্কে প্রতারণাও বাড়ছে। বাড়ছে সন্দেহ। আর এই সন্দেহের কারণেই সঙ্গীর ফোনে তল্লাশি চালানোর প্রবণতা লক্ষ্য করা যায় অনেকের মাঝে। কিন্তু এই অভ্যাস সম্পর্কের জন্য খুবই ক্ষতিকর। জেনে নিন কেন সঙ্গীর ফোনে তল্লাশি চালানো উচিত নয় সেই সম্পর্কে।

অস্থিরতা: সঙ্গীর সঙ্গে কোথাও খেতে গিয়েছেন। সময়টাকে উপভোগ করার বদলে মাথায় ঘুরছে ফোন তল্লাশি করার ভাবনা। সঙ্গী পাঁচ মিনিটের জন্য ওয়াশরুমে যেতেই ফোন নিয়ে ঘাটাঘাটি শুরু। এভাবেই নিজের অজান্তে মূল্যবান সময়গুলো নষ্ট হচ্ছে। সময়টুকু উপভোগ করার বদলে অস্থিরতায় কাটছে।

নেতিবাচক ভাবনা: ফোনে তল্লাশি চালানোর ইচ্ছে হওয়া মানেই মনে নেতিবাচক ভাবনা আছে আপনার। আপনি প্রতারণার আশঙ্কা করছেন সারাক্ষণ। যে মানুষটিকে বিশ্বাসই করতে পারছেন না, তার সঙ্গে সম্পর্ক এগিয়ে নেয়ার ব্যাপারে আবার ভেবে দেখুন। নয়তো নেতিবাচক চিন্তায় ডুবে নিজের জীবনের শান্তি নষ্ট হবে।

বিশ্বাস নষ্ট: আপনার কাছের মানুষটি আপনাকে বিশ্বাস করে ফোনের পাসকোড জানিয়েছে কিংবা ফোনটা দিয়ে গেছে আপনার হাতে। কিন্তু আপনি তার ফোন ঘাঁটছেন। এতে আপনার সঙ্গীর বিশ্বাস নষ্ট করছেন আপনি।

হয়তো কিছুই নেই: সঙ্গীকে সন্দেহ করে ফোনে তল্লাশি চালালেন। কিন্তু দেখলেন সন্দেহ করার মতো কিছুই নেই। এতে আপনি নিজের কাছে নিজে ছোট হবেন। সেই সঙ্গে সঙ্গীর সঙ্গেও সম্পর্ক নষ্ট হবে।

খুলে বলুন: সঙ্গীর ফোনে তল্লাশি করার ইচ্ছে হওয়া মানেই আপনি তাকে সন্দেহ করছেন। আর সন্দেহ করার পেছনেও নিশ্চয়ই কোনো কারণ রয়েছে। বিষয়টি সঙ্গীকে সরাসরি বলুন। এতে দুজনের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি থাকলে সেটা দূর হবে এবং সম্পর্ক মজবুত হবে। টাইমস অব ইন্ডিয়া

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here