পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, যেসব দুর্নীতিবাজ রাজনীতিক দেশকে ভয়াবহ ঋণের মধ্যে ফেলেছেন তাদেরকে বিচার আওতায় আনা হবে, কাউকে ছাড়া হবে না। গতরাতে জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে তিনি এ অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

জাতীয় সংসদে বার্ষিক খসড়া বাজেট পেশ ও গুরুত্বপূর্ণ কয়েকজন রাজনৈতিক নেতাকে আটকের পর তিনি এ ঘোষণা দিলেন। আটক ব্যক্তিরা হলেন, পাঞ্জাব প্রাদেশিক পরিষদের বিরোধী নেতা হামযা শাহবাজ ও সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারি। এছাড়া, লন্ডন পুলিশ মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্টের প্রতিষ্ঠাতা আলতাফ হুসেইনকে আটক করেছে। হামযা শাহবাজ ও আসিফ আলী জারদারিকে পাকিস্তান ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টাবিলিটি ব্যুরো আটক করে।

ইমরান খান বলেন, দেশের অর্থনীতিকে কিছুটা স্থিতিশীল করার পর এখন তিনি দুর্নীতিবাজ রাজনীতিকদের দিকে নজর দেবেন। তিনি বলেন, দেশকে যারা এই ভয়াবহ অবস্থার মধ্যে ফেলেছে তিনি তাদের দিকে বেশি গুরুত্ব দেবেন। এজন্য উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন কমিশন গঠন করা হবে। তিনি বলেন, এ কমিশনের প্রধান কাজ হবে কীভাবে দুর্নীতিবাজরা গত ১০ বছরে দেশের ঘাড়ে ২৪ হাজার বিলিয়ন রুপি ঋণের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছে তা তদন্ত করে বের করা।

ইমরান খান বলেন, “আমি আন্দোলনের ভয়ে ভীত হব না, আমাকে ব্ল্যাকমেইল করা যাবে না এমনকি আমার জীবনও যদি চলে যায় তবু আমি এই চোরগুলোক ছাড়ব না। আমি আল্লাহর কাছে মুনাজাত করেছি- আমাকে একটিবার সুযোগ দিন- আমি তাদেরকে ছাড়ব না।”

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here