২০১০ সালে পাকিস্তানের ইংল্যান্ড সফরে ইচ্ছা করে নো বল দেন মোহাম্মদ আসিফ ও মোহাম্মদ আমির। টেস্ট দলের অধিনায়ক সালমান বাট ছিলেন মূল হোতা। স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে বিভিন্ন মেয়াদে নিষিদ্ধ করা হয় তিনজনকে।

তখন মাত্র ১৮ বছর বয়স ছিল আমিরের। সেই কলঙ্কজনক অধ্যায় কাটিয়ে ফের দেশের জার্সিতে মাঠ দাপাচ্ছেন মোহাম্মদ আমির। যদিও সালমান বাট আর মোহাম্মদ আসিফের ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গেছে।

তবে এরইমধ্যে বোমা ফাটালেন আব্দুর রাজ্জাক। জিএনএন নিউজ চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সাবেক এই অলরাউন্ডার বলেন, ওই ঘটনার পর আফ্রিদি আমিরকে নিয়ে আলাদা বসেছিলেন। আমিও সেখানে ছিলাম। সে (আফ্রিদি) আমাকে রুমের বাইরে যেতে বলেছিল। কিন্তু কিছুক্ষণ পরই একটা থাপ্পড়ের শব্দ শুনতে পেলাম। এরপর আমির পুরো সত্যটা জানালো।

তিনি বলেন, ইংল্যান্ডে এই ঘটনার আগেই ইচ্ছা করে আউট হতেন বাট এবং অনেক ডট বল খেলতেন। আমার এই আশঙ্কার কথা আফ্রিদিকে জানিয়েছিলাম। কিন্তু সে বলতো এটা আমার ভুল বোঝাবুঝি। কোনও সমস্যা নেই। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বিশ্ব টি-টোয়েন্টির এক ম্যাচে যখন সালমান বাটের সঙ্গে ব্যাট করছিলাম, আমি বুঝতে পারছিলাম সে আমাদের দলকে ডোবাবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here