অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ৩৩৫ রানের লক্ষ্যে শ্রীলঙ্কার ওপেনিং জুটি তেড়েফুঁড়ে ব্যাটিং শুরু করেছিল। তাতে বিশ্ব রেকর্ড গড়ে তারা জিততে যাচ্ছে, সেই ধারণা করা বাড়াবাড়ি ছিল না। কিন্তু জ্বলে উঠলেন মিচেল স্টার্ক। বাঁহাতি অজি পেসারের আগুন বোলিংয়ে ঝড়ো শুরু করা শ্রীলঙ্কাকে ৮৭ রানে হারালো অস্ট্রেলিয়া।

 ৩৩৫ রানের টার্গেট সামনে রেখে কী দুর্দান্ত শুরুটাই না করে শ্রীলঙ্কা। ৫২ রান করে কুশল পেরেরা যখন আউট হন, তখন স্কোরবোর্ডে রান ১১৫। তাও আবার ১৫.৩ ওভারে। স্কোর দেড়শ ছাড়ানোর পর ফেরেন লাহিরু থিরিমান্নে (১৬)। তবে কুশল মেন্ডিসকে সঙ্গে নিয়ে পাহাড় টপকানোর দিকে ছুটছিলেন অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্মে।

কিন্তু ৩০ রান করে মেন্ডিস ফিরতেই মড়ক লাগে লঙ্কান ব্যাটিং লাইনআপে। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ও থিসারা পেরেরাদের নড়বড়ে মানসিকতা দেখে অজিদের পেস ঝড়ে বাড়তি হাওয়া যোগ হয়। যে ঝড়ে একেবারে কুপোকাত ১৯৯৬ বিশ্বকাপজয়ীদের ব্যাটসম্যানরা। তিন রানের আক্ষেপ নিয়ে করুনারত্মে ফিরতেই লড়াই থেমে যায় শ্রীলঙ্কার। তাদের শেষের ব্যাটসম্যানরা অস্ট্রেলিয়ার জয় বিলম্ব করা ছাড়া বিশেষ কিছুই করতে পারেননি। ২৫ বাকি থাকতে ২৪৭ রানে অলাআউট হয় তারা।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে মিচেল স্টার্ক চারটি, কেন রিচার্ডসন তিনটি ও প্যাট কামিন্স দুটি উইকেট নেন। জেসন বেহরেনডোর্ফ নেন একটি উইকেট।

গত দু’টি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে ভেস্তে যাওয়ায় মাঠে নামার সুযোগ হয়নি। অবশেষে শনিবার লন্ডনে মাঠে নামার সুযোগ হয় লঙ্কান ক্রিকেটারদের। টস জিতে অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে আবহাওয়ার ফায়দা তুলতে চেয়েছিলেন লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে। কিন্তু বাস্তবে তা ব্যুমেরাং হয়ে ফেরে।

ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ওপেনিং জুটিতে ৮০ রান যোগ করেন অধিনায়ক ফিঞ্চ। গত ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ২৬ রানে ফিরে যাওয়ার পর দ্রুত ফেরেন উসমান ঝ (১০)। এরপর তৃতীয় উইকেটে প্রাক্তন অধিনায়কের সঙ্গে ১৭৩ রানের পার্টনারশিপ গড়ে দলকে রানের পাহাড়ে ওঠার দিশা দেখান অ্যারন ফিঞ্চ।

স্টিভ স্মিথের সঙ্গে জুটি বেঁধে শ্রীলঙ্কান বোলারদের বেদমহারে পিটিয়ে প্রথমে শতরান ও পরে দেড়শতরান পূর্ণ করেন ফিঞ্চ। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এটি তার ১৪তম শতরান। ৪২.৪ ওভারে ফিঞ্চ যখন আউট হন, দলের রান তখন ২৭৩। অজি দলনায়কের ১৫৩ রানের ইনিংস এদিন সাজানো ছিল ১৫টি চার ও ৫টি ছক্কায়। অধিনায়কের পাশাপাশি ৫৯ বলে ৭৩ রানের মূল্যবান ইনিংস আসে স্মিথের ব্যাট থেকে। ২৫ বলে অপরাজিত ৪৬ রানের মারকুটে ইনিংস খেলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ৩৩৪ রানে শেষ করে অস্ট্রেলিয়া।

২টি করে উইকেট নেন ইসুরু উদানা ও ধনঞ্জয় ডি সিলভা। ১০ ওভারে ৮৮ রান খরচ করেন নুয়ান প্রদীপ।

আসরে পয়েন্ট টেবিলের অস্ট্রেলিয়া চার ম্যাচে তিন জয়ে ছয় পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে রয়েছে। আর শ্রীলঙ্কা সমান ম্যাচে এক জয়, দুই ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার কারণে ৪ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ নম্বরে রয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here