মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, তেহরানের সঙ্গে যুদ্ধে জড়ানোর ইচ্ছা ওয়াশিংটনের নেই। তবে একইসঙ্গে তিনি ওমান সাগরে দু’টি তেল ট্যাংকারে বৃহস্পতিবারের রহস্যজনক হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করেন।

পম্পেও মার্কিন নিউজ চ্যানেল ফক্স নিউজকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, “প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যুদ্ধ এড়ানোর জন্য সম্ভাব্য সবকিছু করেছেন। আমরা যুদ্ধ চাচ্ছি না।” আমেরিকা পারস্য উপসাগরের কৌশলগত এলাকাগুলো দিয়ে আন্তর্জাতিক জাহাজ চলাচলের নিরাপত্তা বিধান করবে বলেও প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

গত মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে যুদ্ধের বিষয়ে যে মন্তব্য করেছিলেন পম্পেও ফক্স নিউজকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তার পুনরাবৃত্তি করলেন মাত্র। ট্রাম্প মে মাসে ব্রিটেন সফরের সময় ব্রিটিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতে একাধিকবার বলেছেন, তিনি ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক সংঘাতে যেতে চান না বরং এর পরিবর্তে তেহরানের সঙ্গে তার ভাষায় আরেকটি চুক্তি করার লক্ষ্যে আলোচনায় বসতে চান।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী, প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফসহ ইরানের সব শীর্ষস্থানীয় নেতারা মার্কিন প্রেসিডেন্টের আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে  বলেছেন, যে দেশটি একবার আলোচনায় বসে স্বাক্ষরিত চুক্তি লঙ্ঘন করেছে তার সঙ্গে কোনো বিচারবুদ্ধিসম্পন্ন স্বাধীনচেতা দেশ আবার আলোচনায় বসতে পারে না।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here