ব্রিটেনে নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত হামিদ বায়িদিনেজাদ বলেছেন, পরমাণু সমঝোতা বা জেসিপিওএ থেকে আমেরিকা বের হয়ে যাওয়ার পর এখন আর তারা এ বিষয়ে কোনো কথা বলার অধিকার রাখে না। তিনি মার্কিন টিভি চ্যানেল সিএনএন-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেছেন।

বায়িদিনেজাদ বলেন, আমেরিকা ইরানের সঙ্গে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা থেকে অন্যায়ভাবে বেরিয়ে গেছে এবং এই সমঝোতাকে নিকৃষ্টতম সমঝোতা হিসেবে ঘোষণা করেছে। এ অবস্থায় আমেরিকা কীভাবে প্রত্যাশা করে ইরান এই পরমাণু সমঝোতায় দেওয়া প্রতিশ্রুতিগুলো পুরোপুরি মেনে চলবে?

তিনি বলেন, আমরা বারবার বলেছি পরমাণু সমঝোতা তখনই কেবল পুরোপুরি বাস্তবায়িত হবে যখন সব পক্ষ প্রতিশ্রুতি মেনে চলবে। কিন্তু তা যদি পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা না হয় তাহলে ইরানের অধিকার রয়েছে বিষয়টি সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত কিছু প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন স্থগিত রাখা।

ইরানি রাষ্ট্রদূত বলেন, পরমাণু সমঝোতার ২৬ ও ৩৬ নম্বর ধারা অনুযায়ী অপর পক্ষ প্রতিশ্রুতি মেনে না চললে তা আংশিক বা পুরোপুরি স্থগিত রাখার অধিকার ইরানের রয়েছে।

২০১৮ সালের ৮ মে আন্তর্জাতিক পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকা অন্যায়ভাবে বেরিয়ে যাওয়ার পর জার্মানি, ব্রিটেন ও ফ্রান্স ইরানের অর্থনৈতিক স্বার্থ পুরোপুরি নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেছিল, এই সমঝোতা টিকিয়ে রাখা হবে। কিন্তু এই দেশগুলো এ পর্যন্ত মুখে পরমাণু সমঝোতার পক্ষে কথা বললেও প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নেয়নি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here