মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়সসীমা সাড়ে ১২ নির্ধারণের গেজেট ও পরিপত্র অবৈধ ঘোষণা করে দেওয়া হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্ট। রোববার রাষ্ট্রপক্ষের এক আবেদনের শুনানি নিয়ে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।

রিট আবেদনকারীদের পক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার এবিএম আলতাফ হোসেন জানান, সুপ্রিমকোর্টের ‘নো অর্ডার’ আদেশের মানে হলো হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রইলো।

হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় পাওয়া সাপেক্ষে রাষ্ট্রপক্ষ লিভ টু আপিল করতে পারে বলেও জানান তিনি।

আজ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

এর আগে, হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করে। যা গত ১৯ জুন চেম্বার বিচারপতির আদালতে শুনানির জন্য ওঠে। সেদিন চেম্বার বিচারপতি রায়ে স্থগিতাদেশ না দিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনটি ২৩ জুন (আজ) আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন।

এ অনুসারে আজ রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপর শুনানি হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে সরকারের তরফে দেওয়া এক পরিপত্রে মুক্তিযোদ্ধাদের বয়স ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ তারিখে ন্যূনতম ১৩ বছর নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছিলো।

এরপর গত বছর জানুয়ারি মাসে এটি সংশোধন করে বলা হয়, মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সরকারি স্বীকৃতির জন্য ১৯৭১ সালের ৩০ নভেম্বর ন্যূনতম বয়স ১২ বছর ছয় মাস হতে হবে।

সরকারের এই পরিপত্রকে অবৈধ ঘোষণা করে গত ১৯ মে হাইকোর্ট বলেন, “মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়স নির্ধারণ করে দেওয়ার কোনো এখতিয়ার নেই সরকারের।”

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here