ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির হাতামি বলেছেন, ইয়েমেনে মানুষ হত্যার জন্য পাশ্চাত্যকেও জবাবদিহি করতে হবে। তিনি রাসায়নিক ও জীবাণু অস্ত্র বিরোধী জাতীয় দিবসকে সামনে রেখে আজ (শুক্রবার) এ কথা বলেন। আগামীকাল ইরানে এ দিবসটি পালিত হবে।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, সৌদি আরব ও তার মিত্রদেশগুলো ইয়েমেনে মানুষ হত্যায় পাশ্চাত্যের অস্ত্র ব্যবহার করছে। এ কারণে পাশ্চাত্যের অপরাধের তালিকায় ইয়েমেনে একের পর এক গণহত্যার ঘটনাও যুক্ত হচ্ছে।

মানুষ হত্যায় পাশ্চাত্য বিশেষকরে আমেরিকার ভূমিকার প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, পাশ্চাত্যের দেশগুলো বিশেষ করে আমেরিকা ১৯৮০’র দশকে তৎকালীন সাদ্দাম সরকারকে ইরানের বিরুদ্ধে ব্যবহারের জন্য রাসায়নিক অস্ত্র দিয়েছিল এবং সেই অস্ত্র ব্যবহার করে সাদ্দাম বহু মানুষকে হত্যা করেছে।

তিনি বলেন, মানবাধিকার রক্ষার মিথ্যা দাবিদার আমেরিকাকে তার বর্তমান ও অতীত অপরাধযজ্ঞের জন্য বিশ্ব বিবেকের কাছে জবাবদিহি করতে হবে।

‌ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, পাশ্চাত্যের দেশগুলোও স্বীকার করেছে সাদ্দামের  রাসায়নিক হামলায় ২০ হাজার ইরানি শহীদ হয়েছেন। আমেরিকাসহ পাশ্চাত্যের দেশগুলোই এই মারণাস্ত্র সাদ্দামের হাতে তুলে দিয়েছিল বলে তিনি জানান।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here