উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে আবারো বৈঠক করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দুই কোরিয়াকে বিভক্তকারী রেখার কাছে বেসামরিকীকরণ এলাকা বা ডিএমজেড-এ ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকের আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সীমান্ত রেখা পেরিয়ে উত্তর কোরিয়ার ভেতরে হেঁটে যান। অন্যদিকে, উত্তর কোরিয়ার নেতা সীমান্ত রেখা পেরিয়ে দক্ষিণ কেরিয়ার ভেতরে কয়েক পা হেঁটে যান। দুজনই এই প্রথম কোরিয়া উপদ্বীকে বিভক্তকারী সীমান্ত রেখা অতিক্রম করলেন।

সীমান্ত রেখা পার হওয়ার পর ট্রাম্প বলেন, “এটি আমার প্রতি সম্মান। সীমানা পেরিয়ে হেঁটে যাওয়া আমার জন্য বিরাট সম্মানের বিষয়।” ট্রাম্প আরো বলেন, “অনেক কিছুই ঘটছে। আমরা প্রথম বৈঠকে সাক্ষাৎ করেছি এবং একে অপরকে পছন্দ করেছি। এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

কিম বলেন, “মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পই প্রথম সীমান্ত রেখা পার হয়ে আমাদের দেশ সফর করলেন। অতীতের আগ্রাসন বাদ দিয়ে নতুন অধ্যায় রচনার ক্ষেত্রে এটি তার সদিচ্ছা বলে আমরা মনে করি।”

সীমান্তে বেসামরিকীকরণ এলাকা সফরের সময় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইন ছিলেন। এর আগের দিন ট্রাম্প ও মুন দক্ষিণ কোরিয়ায় যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন। ট্রাম্প জানান, শেষ মুহূর্তে তিনি কিম জং উনকে বৈঠকের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এ নিয়ে উত্তের কোরিয়ার নেতার সঙ্গে তিনদফা বৈঠক করলেন। তবে এখনো কাঙ্ক্ষিত কোনো ফলাফল আসে নি। আমেরিকার দাবি অনুসারে উত্তর কোরিয়া তার পরমাণু কর্মসূচি বাতিল করে নি আবার পিয়ংইয়ংয়ের ওপর থেকে মার্কিন সরকার নিষেধাজ্ঞাও প্রত্যাহার করে নি। অথচ ট্রাম্প বার বার বলছেন, তিনি উত্তর কোরিয়ার নেতাকে পছন্দ করেছেন এবং কিম খুব চমৎকার মানুষ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here