আমেরিকা ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গেলেও ইউরোপীয় ইউনিয়নের পাশাপাশি তিন ইউরোপীয় দেশ জার্মানি, ফ্রান্স ও ব্রিটেন সব সময় এ সমঝোতার প্রতি তাদের সমর্থন ব্যক্ত করে এসেছে। এবার এই তিন দেশের সঙ্গে আরো সাত ইউরোপীয় দেশ যুক্ত হয়ে বলেছে, তারা ইরানের সঙ্গে চালু হওয়া আর্থিক লেনদেনের বিশেষ ব্যবস্থা- ইন্‌সটেক্সে যুক্ত হতে যাচ্ছে।

অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, ফিনল্যান্ড, হল্যান্ড, স্লোভেনিয়া, স্পেন ও সুইডেন এক যৌথ বিবৃতিতে ইরানের পরমাণু সমঝোতা রক্ষা করার আহ্বান জানিয়ে বলেছে, পরমাণু অস্ত্র বিস্তার রোধ এবং মধ্যপ্রাচ্যে স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে এ সমঝোতা রক্ষা করার বিকল্প নেই। বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, এ সমঝোতার আর্থিক লেনদেনে সমস্যা দেখা দেয়ায় আমরা ইন্‌সটেক্স বাস্তবায়নে সার্বিক সহযোগিতা করব।

এই সাত ইউরোপীয় দেশ আরো বলেছে, তাদের পক্ষ থেকে পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়নে সহযোগিতার বিনিময়ে তারা চায় ইরানও এ সমঝোতা পুরোপুরি মেনে চলুক।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ইরান প্রায় দু’মাস আগে পরমাণু সমঝোতা অনুযায়ী আর্থিক সুবিধা পেতে ইউরোপকে ৬০ দিনের যে আল্টিমেটাম দিয়েছিল তা শেষ হয়ে আসার আগ মুহূর্তে সাত ইউরোপীয় দেশের এ বিবৃতি থেকে বোঝা যায়, ইরানের হুমকিতে অনেক বড় কাজ হয়েছে।

২০১৮ সালের ৮ মে আমেরিকা পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর ইউরোপীয় দেশগুলো এ সমঝোতা রক্ষা করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ইরানকেও এতে টিকে থাকার আহ্বান জানায়। তারা এ সমঝোতায় ইরানকে যেসব আর্থিক সুবিধা দেয়ার কথা ছিল তা তেহরানকে দিতে সম্মত হয়। চলতি বছরের গোড়ার দিকে তিন ইউরোপীয় দেশ ঘোষণা করে, তারা মার্কিন নিষেধাজ্ঞাকে পাশ কাটিয়ে ইরানের সঙ্গে আর্থিক লেনদেন চালু করতে বিশেষ আর্থিক ব্যবস্থা ইন্‌সটেক্স চালু করবে।

কিন্তু তাদের পক্ষ থেকে এ প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের কোনো লক্ষণ দেখা না যাওয়ায় গত ৮ মে ইরান এ সমঝোতার কিছু কিছু ধারার বাস্তবায়ন স্থগিত রাখার কথা ঘোষণা করে। তেহরান হুমকি দিয়ে জানায়, আগামী ৮ জুলাই’র মধ্যে ইউরোপ পরমাণু সমঝোতা রক্ষার লক্ষ্যে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হলে ইরান আরো কিছু ধারার বাস্তবায়ন স্থগিত রাখবে।

এ অবস্থায় গত শুক্রবার পরমাণু সমঝোতায় টিকে থাকা অবশিষ্ট দেশগুলোর সঙ্গে ভিয়েনায় ইরানের বৈঠকে প্রথমবারের মতো আশাব্যাঞ্জক কথা শোনা যায়। বৈঠকে অংশগ্রহণকারী ইরানের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্বাস আরাকচি ঘোষণা করেন, আর্থিক লেনদেনের বিশেষ ব্যবস্থা ইন্‌সটেক্স চালু হয়েছে। এ ছাড়া, শিগগিরই এসব দেশের সঙ্গে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক হবে বলেও জানান তিনি। একইসঙ্গে আরাকচি একথাও বলেন, ইন্‌সটেক্স চালু করার বিষয়টি ইতিবাচক হলেও তা ইরানের প্রত্যাশা অনুযায়ী যথেষ্ট নয়। এতটুকু দিয়ে ইরানের আল্টিমেটাম রোধ করা যাবে না বলেও সতর্ক করে দেন তিনি।

ভিয়েনা বৈঠক শেষে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তার বিশেষ সহকারী হেলগা শ্মিড বলেন, ইন্‌সটেক্স চালু হয়েছে এবং এর মাধ্যমে প্রথম লেনদেন সম্পন্ন হওয়ার পথে রয়েছে। শিগগিরই আরো কিছু ইউরোপীয় দেশ এই ব্যবস্থায় যুক্ত হবে বলেও তিনি ঘোষণা করেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here