মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের পরমাণু সমঝোতায় ফিরে না এলে ওয়াশিংটনের সঙ্গে তেহরানের আলোচনা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি মাজিদ তাখতে রাভানচি। তিনি গতরাতে (রোববার রাতে) মার্কিন নিউজ চ্যানেল সিএনএন’কে দেয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে তার দেশের এ অবস্থানের কথা ঘোষণা করেন।

তাখতে রাভানচি বলেন, ইরান-মার্কিন সংলাপ আয়োজনের জন্য ওয়াশিংটনকে আগে পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসতে হবে।

ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, আমেরিকা এমন সময় তেহরানের সঙ্গে আলোচনায় বসার প্রস্তাব দিচ্ছে যখন খোদ মার্কিন সরকার নিজেই আলোচনার টেবিল থেকে উঠে গেছে। ইরানের পরমাণু ইস্যুতে যখন সবাই তেহরানের সঙ্গে সংলাপ চালিয়ে যাচ্ছিল তখন হঠাৎ করেই আলোচনার টেবিল ছেড়ে চলে যায় ট্রাম্প প্রশাসন।  তাখতে রাভানচি বলেন, আজ মধ্যপ্রাচ্যে যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করতে তার জন্য ট্রাম্পের ওই একটি সিদ্ধান্তই দায়ী।

সিএনএন’র সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, “আপনি বর্তমান পরিস্থিতির সঙ্গে ২০১৮ সালের গোড়ার দিকের অর্থাৎ পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকার বেরিয়ে যাওয়ার আগের পরিস্থিতির তুলনা করুন। গোটা পরিস্থিতির আমূল পরিবর্তন ঘটেছে। কাজেই আবার আগের অবস্থা ফিরিয়ে আনার জন্য আমেরিকাকে পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে এতে ফিরে আসতে হবে।”

এ ছাড়া, আমেরিকা যতদিন ইরানকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে ততদিন ওয়াশিংটনের সঙ্গে আলোচনা সম্ভব নয় বলেও জানান তাখতে রাভানচি। তিনি বলেন, আলোচনা ও হুমকি পরস্পরবিরোধী বিষয়। যে ব্যক্তি হুমকি ও ভয় দেখায় এবং একের পর এক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তার সঙ্গে কেউ আলোচনায় বসে না।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here